চট্টগ্রাম, সোমবার, ২০ মে ২০২৪ , ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সৌর প্যানেলের নিচে হবে সবজি-মাছ চাষ

প্রকাশ: ১৮ এপ্রিল, ২০২৪ ২:২৭ : অপরাহ্ণ

 

সৌরবিদ্যুৎ প্রকল্পকে কৃষিবান্ধব করার পরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। অনাবাদি জমি ও চরে সোলার প্যানেল দিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন হবে, আর তার নিচে করা হবে মাছ ও শাকসবজি চাষ। চার পাশে করা হবে ফলে বাগান। সিরাজগঞ্জ সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্রে ফসল উৎপাদন করে সফলতা পেয়েছে সংশ্লিষ্টরা। পর্যায়ক্রমে অন্যান্য সৌর বিদ্যুৎ কেন্দ্রেও এই পদ্ধতি কার্যকর করা হবে বলে জানান প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক।

 

দেশের প্রায় সব সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্রের জমি ফেলে রাখা হয়েছে। সেখানে কোনো ফসল আবাদ করা হয় না। কারণ হিসেবে বলা হতো, সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্যানেল বসানোর ফলে এর নিচে তাপমাত্রা বেড়ে যায়; যা ফল-ফসল আবাদের পরিবেশকে নষ্ট করে। কিন্তু সেই ধারনা পাল্টে দিয়ে নতুন গবেষণা বলছে, উঁচু প্যানেল বসানো হলে নিচে ফসল ফলানো সম্ভব।

 

সিরাজগঞ্জের সয়দাবাদ ইউনিয়নের বড় শিমুল ও পঞ্চসোনা মৌজায় প্রায় ২৩ একর জমিতে সিরাজগঞ্জ সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্রের নিচে ফসল আবাদ করে সফলতা পেয়েছে। কেন্দ্রটি থেকে জাতীয় গ্রিডে বিদ্যুৎ সরবরাহ করছে অনেকদিন আগে থেকেই। উঁচু পিলারের ওপর সোলার প্যানেল বসানোর ফলে নিচে মিস্টি কুমড়া, কচু, সিম বেগুনসহ বেশি কিছু মৌসুমী সবজি চাষ হয়েছে।

 

সিরাজগঞ্জের সায়েদাবাদে ২১৪ একর পতিত জমিতে ৬৮ মেগাওয়াট সৌর বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নির্মাণ কাজও শেষ পর্যায়ে। এটি চালু হলে বর্ষা মৌসুমে প্যানেলের নিচে করা হবে মাছ চাষ। আর শুকনো মৌসুমে হবে বিভিন্ন সবজির চাষ। প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক জানান, জমির স্বল্পতা বিবেচনায় এই প্রকল্প কৃষিবন্ধব সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদাহরণ হতে পারে।

কৃষি কর্মকর্তাদের পরামর্শ নিয়ে সময়মতো ফসল আবাদ করা গেলে সোলার প্যানেলের নিচের জমিতে ভালো ফসল ফলানো সম্ভব বলে মত দেন কৃষিবিদরা।

 

 

Print Friendly and PDF