চট্টগ্রাম, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪ , ৩রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রমজানে ডায়াবেটিক রোগীর ইনসুলিন নেয়ার নিয়ম নিয়ে যা জানালেন চিকিৎসক

প্রকাশ: ২৯ মার্চ, ২০২৪ ২:১২ : অপরাহ্ণ

 

ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য খাবার খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। রোজায় দীর্ঘসময় না খেয়ে থাকতে হয় বলে তাদের আলাদা সতর্কতা অবলম্বন করতে হয়। ডায়াবেটিক রোগীদের রোজা রাখতে বেশ কিছু নিয়মকানুন অনুসরণের পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা। কারণ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের নিয়ম মেনে ও সময় মতো খাবার খেতে হয়। আবার এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে অধিকাংশই ইনসুলিন নিয়ে থাকে। তাই রোজায় ইনসুলিন গ্রহণ নিয়েও কিছু নিয়ম মেনে চলতে হয়। অনেক ডায়াবেটিক রোগী ইনসুলিন নিয়ে চিন্তায় পড়ে যান। তাই এ নিয়ে থাকাতে হবে পরিষ্কার ধারণা।

ডায়াবেটিক রোগী ইনসুলিন নেয়ার সম্পর্কে রাজধানীর তেজগাঁওয়ের ইমপালস হাসপাতালের কনসালট্যান্ট, ডায়াবেটিস, থাইরয়েড ও হরমোন রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. এ হাসনাত শাহীন জানান, রমজান মাসে যেহেতু খাদ্যাভ্যাস ও খাদ্য গ্রহণের সময়সূচিতে বড় পরিবর্তন আসে তাই যারা ইনসুলিন নেন তারা রক্তে শর্করা কমে যাওয়া বা হাইপোগ্লাইসেমিয়া নিয়ে আতঙ্কে থাকেন। এর জন্য সঠিক ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে রোজা শুরুর আগেই ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে ওষুধ বা ইনসুলিনের মাত্রা চিকিৎসকের পরামর্শে পুনর্নির্ধারণ করে নিতে হয়।

এর জন্য যারা দুই বেলা প্রি-মিক্সড ইনসুলিন ব্যবহার করে থাকেন তারা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ থাকলে রোজার আগের সকালের মাত্রার (ডোজ) পুরোটা ইফতারের সময় নিতে পারেন। এছাড়া রাতের মাত্রার অর্ধেক পরিমাণ সাহ্‌রির সময় নিতে হবে। আবার তিন বেলা স্বল্পমেয়াদি ইনসুলিন (দেখতে স্বচ্ছ) নিয়ে থাকেন তারা সকালের মাত্রা ইফতারের সময়, দুপুরের মাত্রা রাতে খাবারের সময় (না খেলে নেয়ার প্রয়োজন নেই) ও রাতের মাত্রার অর্ধেক সাহ্‌রির সময় গ্রহণ করবেন। তবে যারা তিন বেলা ইনসুলিনের সঙ্গে রাতে দীর্ঘমেয়াদি ইনসুলিন (দেখতে ঘন) নিয়ে থাকেন তারা অর্ধেক মাত্রায় সাহ্‌রিতে গ্রহণ করবেন। আর যারা ঘুমানোর আগে একটি নির্দিষ্ট সময় বা বেড টাইমে ইনসুলিন নিতেন, তা একই সময় নেবেন।

 

 

ইফতারের আগে গ্লুকোমিটারে রক্তের শর্করা পরীক্ষা করে নেয়া যায়। এই মাপ অন্য সময় ফাস্টিং বা খালি পেটে সুগারের নির্দেশনা দেয়। ইফতারের দুই ঘণ্টা পর মাপলে তা খাওয়ার পরের সুগারকে নির্দেশনা করে। ইফতারের আগে যদি রক্তের শর্করা ৪ বা এর কাছাকাছি নেমে যায় তবে আগের মাত্রা থেকে কিছুটা কমিয়ে নেবেন। ইনসুলিনের সঙ্গে যদি কেউ ট্যাবলেট গ্রহণ করে থাকেন, সে ক্ষেত্রে সেই ট্যাবলেট গ্রহণের মাত্রা ও সময়টাও পুনর্নির্ধারণ করে নিতে হবে।

 

Print Friendly and PDF