চট্টগ্রাম, রোববার, ২৩ জুন ২০২৪ , ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আজ ডিএমপির ৪৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

প্রকাশ: ১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ১২:১১ : অপরাহ্ণ

 

‘সেবা ও সদাচার, ডিএমপি’র অঙ্গীকার’- এই প্রতিপাদ্যকে উপজীব্য করে নানা আনুষ্ঠানিকতায় আজ বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) উদযাপিত হচ্ছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের ৪৯তম প্রতিষ্ঠা দিবস।

ডিএমপির প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব, আইজিপি ও ডিএমপি কমিশনার পৃথক পৃথক বাণী দিয়েছেন।

এ উপলক্ষে সকাল ১০টায় রাজারবাগ পুলিশ লাইনসে সুধী সমাবেশ ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। এতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল প্রধান অতিথি থাকবেন।

 

১৯৭৬ সালের ১ ফেব্রুয়ারি ৬ হাজার পুলিশ সদস্য এবং ১২টি থানা নিয়ে যাত্রা শুরু করে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ। দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় ঢাকা মহানগরীর প্রায় ২ কোটি ২৫ লাখ নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে ডিএমপি’র কার্যক্রম ৫০টি থানায় বিস্তৃত হয়েছে। বর্তমান ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমান বিপিএম (বার), পিপিএম (বার)-এর সুযোগ্য নেতৃত্বে কাজ করছেন ৬ জন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিআইজি), ১২ জন যুগ্ম পুলিশ কমিশনার (অতি: ডিআইজি), ৫৭ জন উপ-পুলিশ কমিশনারসহ (এসপি) ৩৪ হাজার অফিসার ও ফোর্স।

 

মহানগরীর সকল নাগরিকের জন্য নিরাপদ, নির্ভয় ও নির্বিঘ্ন ঢাকা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কাজ করেছে আটটি ক্রাইম বিভাগ এবং ৫০টি থানা। ২০২৩ সালে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের বিভিন্ন থানায় অপরাধ দমন ও উদঘাটনে সর্বমোট ২৫ হাজার ৯০২টি মামলা রুজু করা হয়েছে। বর্তমান কমিশনার মহোদয়ের উদ্যোগে ছিনতাই প্রতিরোধে কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ‘ছিনতাই প্রতিরোধ টাস্কফোর্স’ গঠন করা হয়েছে।

ডিএমপি ক্রাইম বিভাগের মামলা মনিটরিং সেল ৫০টি থানা ৪৭৯টি জনগুরুত্বপূর্ণ ও চাঞ্চল্যকর মামলা আলোচনাপূর্বক নিষ্পত্তির প্রয়োজনীয় নিদের্শনা প্রদান করেছে। ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে ১ হাজার ৯৩৪টি পাবলিক পিটিশন প্রাপ্ত হয়ে প্রত্যেকটির উপর কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে তথ্য প্রযুক্তিনির্ভর অপরাধ দমন ও উদঘাটন ব্যবস্থা গড়ে তোলার নিমিত্তে ২৫ হাজার ৯০২টি মামলার সব তথ্য ক্রাইম ডাটা ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (সিডিএমএস) এ সন্নিবেশ করা হয়েছে। সকলের জন্য সমান আইনি সেবা নিশ্চিতকল্পে নারী, শিশু, বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী হেল্প ডেস্ক থেকে ৪০ হাজার ১৮২ জনকে সেবা প্রদান তদারকি করা হয়েছে।

 

দ্রুততম সময়ে মামলার রায় প্রদান এবং অপরাধীদের বিরুদ্ধে সাজার হার বৃদ্ধিকরণ নিশ্চিতের লক্ষ্যে প্রসিকিউশন বিভাগ আদালত সংশ্লিষ্ট সকল কার্যক্রম সিডিএমএস অর্ন্তভুক্ত করার যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। ফলশ্রুতিতে গত এক বছর প্রসিকিউশন বিভাগের ত্বত্তাবধানে আদালত কর্তৃক বিচারাধীন মামলার মধ্যে ১৫ হাজার ৫৩৭টি মামলা নিষ্পত্তি করা সম্ভব হয়েছে যেখানে ৪ হাজার ৭৫৬ জন অপরাধীর সাজা হয়েছে। আর্থিক ক্ষতি, পরিবেশ দূষণ এবং স্থান স্বল্পতার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে ডিএমপি প্রসিকিউশন বিভাগের উদ্যোগে আদালতের সাথে সমন্বয়পূর্বক ৭৮টি মামলার বিপরীতে ১৪৪টি আলামত নিষ্পত্তি করা হয়েছে।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সদর দপ্তর ও প্রশাসন বিভাগের অধীন পুলিশ ক্লিয়ারেন্স, প্রবাসী লিগ্যাল সার্ভিস, কেন্দ্রীয় সংরক্ষণ দপ্তর, ইন্টারনাল ওভারসাইট, মেসেজ টু কমিশনার (M2C), কেন্দ্রীয় রিসিভ ডেসপাস শাখা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। ডিএমপির পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্ভিস সেল হতে ২০২৩ সালে মোট ৫৩, হাজার ২৮৯টি আবেদন নিষ্পত্তি করা হয়েছে যার মধ্যে ৭২ ঘণ্টায় ভেরিফিকেশন সম্পন্ন হয়েছে ২৬ হাজার ৪৭৫টি আবেদনের। প্রবাসী লিগ্যাল সার্ভিস সেলে প্রবাসীদের কাছ থেকে ২০২৩ সালে প্রাপ্ত ১৪৫টি অভিযোগের মধ্য থেকে নিষ্পত্তি করা হয়েছে ১১৪টি এবং ৩১টি অভিযোগ অনুসন্ধানাধীন রয়েছে।

 

ডিএমপির অপারশেনস্ বিভাগ দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের এলাকাভুক্ত ১৬টি সংসদীয় আসনের জন্য নিরাপত্তা পরিকল্পনা প্রণয়নের লক্ষ্যে রিটার্নিং কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সাথে সমন্বয় সাধন, নিরাপত্তা ঝুঁকি পর্যালোচনা করে নিরাপত্তা পরিকল্পনা প্রণয়ন, ২ হাজার ১৪৬টি ভোটকেন্দ্রের জন্য স্ট্যাটিক, মোবাইল, স্ট্রাইকিং, স্ট্যান্ডবাই এবং তদারকি ভিত্তিক অফিসার ও ফোর্স মোতায়ন; সর্বোপরি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের কার্যক্রম সুচারুরূপে সম্পাদন করেছে।

 

এছাড়াও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ঐতিহ্যবাহী ও ধর্মীয় অনুষ্ঠান, রাজনৈতিক কর্মসূচি, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক খেলাধুলা এবং আন্তর্জাতিক সম্মেলনের নিরাপত্তা নিশ্চিতকল্পে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা পরিকল্পনা প্রণয়ণ করে থাকে।

ডিএমপির ডিপ্লোমেটিক সিকিউরিটি বিভাগ অত্যন্ত সাফল্যের সাথে মহানগরীতে অবস্থিত বিশ্বের ৫০টি দেশের দূতাবাস/হাইকমিশন, এ্যাম্বাসেডর/হাইকমিশনারগণের বাসভবন এবং আন্তর্জাতিক সংস্থাসমূহের সার্বিক নিরাপত্তা প্রদান করে আসছে। ডিএমপির সচিবালয় নিরপিত্তা বিভাগ দক্ষতার সাথে বাংলাদেশের নীতি নির্ধারণী কেন্দ্রবিন্দু সচিবালয়ের অভ্যন্তরে এবং বহিঃবেষ্টনীর নিরাপত্তা প্রদান করে আসছে।

 

 

সুত্র: চ্যানেল২৪

Print Friendly and PDF