চট্টগ্রাম, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ , ১৫ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

লাল শাক না পালং শাক কোনটা বেশি উপকারী, যা বলছেন পুষ্টিবিদ

প্রকাশ: ২২ নভেম্বর, ২০২৩ ১১:৩৯ : পূর্বাহ্ণ

 

গ্রাম থেকে শহর, প্রায় সব এলাকার মানুষের কাছে শাক খুবই পছন্দ। এসবের মধ্যে রয়েছে লাল শাক ও পালং শাক। দুটি শাকই পুষ্টিগুণে ভরপুর। কেউ চিংড়ি দিয়ে পালং শাকের ঝুল খেতে পছন্দ করেন, আবার কেউ মাছের শুটিকি দিয়ে লাল শাক খেতে ভালোবাসেন। ব্যক্তিভেদে পছন্দ আলাদা হয়ে থাকে।

দুই শাকেরই ছোট ছোট বিভিন্ন রোগব্যাধির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের মতো উপাদান ক্ষমতা রয়েছে। কিন্তু প্রায়ই বিতর্ক শুরু হয় যে, লাল শাক নাকি পালং শাক পুষ্টিগুণে ভরপুর, কোনটি বেশি উপকারী? এসব বিতর্কের মাঝে বিষয়টি নিয়ে ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেছেন কলকাতা শহরের বিশিষ্ট পুষ্টিবিদ ঈশানী গঙ্গোপাধ্যায়। এবার তাহলে এ ব্যাপারে জেনে নেয়া যাক।

 

পালং শাকের জুড়ি মেলা ভার : পালং শাকে আয়রন, ম্যাগনেশিয়াম, ভিটামিন এ, ফোলেট, ভিটামিন কে, ফসফরাস, থিয়ামিন ও ফাইবারসহ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ উপাদান রয়েছে। এ জন্য নিয়মিত পালং শাক খাওয়া উচিত। নিয়মিত পালং শাক খাওয়ার ফলে ডায়াবেটিস থেকে শুরু করে কোলেস্টেরল, অ্যাজমা, হাই ব্লাড প্রেশারের মতো বিভিন্ন অসুখ দূরে থাকে। এছাড়া এতে বিদ্যমান অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীরে ক্যানসার সেলের বৃদ্ধি আটকে দেয়।

 

লাল শাকও কম নয় : এ শাকে ভিটামিন ও খনিজ রয়েছে প্রচুর পরিমাণে। বিশেষ করে ভিটামিন কে, এ, সি, কপার, জিংক, আয়রন, পটাশিয়ামের মতো গুরুত্বপূর্ণ উপাদান রয়েছে। ফলে নিয়মিত লাল শাক খেলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। এমনকি চোখের স্বাস্থ্যের জন্যও উপকার। এছাড়া অ্যানিমিয়া থেকে অল্প সময়ে সুস্থ হতে চাইলে প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় লাল শাক রাখতে হবে।

 

পালং না লাল শাক, কোনটা উপকারী : পুষ্টিবিদ ঈশানীর মতে, কোনোটাই কম নয়। দুটি শাকই পুষ্টিগুণে ভরপুর। কোনো একটিকে বেছে নেয়া এ জন্য কঠিন হয়ে পড়ে। তবে কিছু ক্ষেত্র মনে রাখা যেতে পারে। লাল শাকে বিটা ক্যারোটিন বেশি পরিমাণে রয়েছে। এ জন্য নিয়মিত লাল শাক খেলে দৃষ্টিশক্তি বাড়ে। অন্যদিকে পালং শাক শরীরের সার্বিক স্বাস্থ্য বজায় রাখতে দুর্দান্ত ভূমিকা রাখে। এ জন্য দুটি শাকই ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে খাদ্যতালিকায় রাখা যেতে পারে।

 

রান্নার সময় সতর্কতা : অনেকেই শাক ভাজি খেতে পছন্দ করেন। কিন্তু ভাজি করে খেলে খুব একটা উপকার পাওয়া যায় না। ভাজি করার সময় শাকের সব পুষ্টি গুণ নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এ জন্য শাকের সব পুষ্টিগুণ পেতে চাইলে সিদ্ধ করে রান্না করতে হবে। এভাবে রান্না করলে ভিটামিন এবং খনিজ থেকে যায়। যা শরীরে পুষ্টির ঘাটতি মিটিয়ে থাকে।

 

কারা খাবেন না : সাধারণ সবাই শাক খেতে পারেন। শাক খেলে বিভিন্ন রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। তবে ক্ষেত্রে বিশেষ কেউ শাক খেলে গ্যাস, অ্যাসিডিটির সমস্যায় পড়েন। আবার কেউ ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হন। এ জন্য তারা শাক খাবেন না। এতে উপকারের থেকে সমস্যা বরং আরও বাড়বে।

 

সুত্র: চ্যানেল২৪

Print Friendly and PDF