চট্টগ্রাম, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪ , ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের জালে চার গোল দিলো জাপান

প্রকাশ: ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২৩ ৩:৫২ : অপরাহ্ণ

 

এশিয়ার দেশ জাপানের কাছে ২-১ গোলে হেরেই কাতার বিশ্বকাপে চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানির কপাল পুড়েছিল। ব্লু সামুরাইদের কাছে প্রথম ম্যাচে হারের পর বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব থেকেই বাদ পড়তে হয় হ্যান্সি ফ্লিকের দল। সেই হারের ক্ষত না শুকাতেই বিশ্বকাপ শেষের ৯ মাসের মাথায় আবারও ব্লু সামুরাইদের কাছে হারের লজ্জা পেলো ফুটবলের পাওয়ার হাউজরা। এবার হারের ব্যবধান আরও বেশি। এ হারের ফলে কোচ হ্যান্সি ফ্লিকের চাকরি বাঁচানো আরও কঠিন হয়ে গেল।

শনিবার (৯ সেপ্টেম্বর) ঘরের মাঠ ভল্কসওয়াগেন অ্যারেনায় প্রীতি ম্যাচে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানিকে ৪-১ গোলে হারিয়েছে এশিয়ার সফলতম দল জাপান। জাপানের পক্ষে জুনয়া ইতো, আয়াসে উয়েদা, তাকুমা আসানো ও আও তানাকা। জার্মানির পক্ষে একমাত্র গোলটি করেন লেরয় সানে।

ইউরোপের অন্য দলগুলো যখন ইউরো ২০২৪ এর বাছাই খেলতে ব্যস্ত তখন জার্মানি খেলছে প্রীতি ম্যাচ। কেননা তারা ২০২৪ ইউরোর স্বাগতিক হওয়ায় বাছাই পর্ব খেলতে হচ্ছে না। দিনকে দিন জার্মানির পারফরম্যান্স তলানির দিকে যাচ্ছে বলাই যায়। জাপানের কাছে হারের মধ্যদিয়ে তারা টানা তিন ম্যাচে হারের স্বাদ পেলো। এর আগে কলম্বিয়ার কাছে ২-০ এবং পোল্যান্ডের কাছে ১-০ গোলে হেরেছিল তারা।

 

 

তাই তো ইউরো-২০২৪ শুরুর মাত্র ৯ মাস আগে এই বাজে পারফরম্যান্স জার্মান ফুটবল কর্মকর্তাদের কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলে দিয়েছে। শুধু তাই নয়, গত ১৭টি আন্তর্জাতিক ম্যাচের মধ্যে মাত্র চারটিতে জয় পেয়েছে জার্মানি। আর ফ্লিকের অধীনে ২৫ ম্যাচের মাত্র ১২টিতে জয় পেয়েছে ডাই মানশাফটরা। একের পর এক হারের কারণে কোচ হান্সি ফ্লিকের চাকরিই হুমকির মুখে পড়ে গিয়েছে এখন। আগামী বুধবার তারা মুখোমুখি হবে বিশ্বকাপের ফাইনালিস্ট ফ্রান্সের।

 

 

এদিন ঘরের মাঠে ম্যাচ শুরুর ১১ মিনিটের মাথায় প্রথম গোল খায় ফুটবলের পাওয়ার হাউজরা। ডানপ্রান্ত থেকে সতীর্থের বাড়ানো ক্রস থেকে দুরূহ কোনে গোল করেন লিগ ওয়ানের ক্লাব রেইমসের উইঙ্গার জুনয়া ইতো। তবে লিড বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি সামুরাইরা।

অবশ্য গোল খাওয়ার ৮ মিনিট পর অর্থাৎ ১৯ মিনিটের মাথায় লেরয় সানে সমতায় ফেরান স্বাগতিকদের। মাঝমাঠ থেকে সতীর্থের দেয়া বল পায়ে দারুণভাবে প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়কে ডোজ দিয়ে ডিবক্সে ঢুকে পড়েন ফ্লোরিয়ান রিটজ। এরপর ডান দিকে ফাঁকায় দাঁড়ানো সানেকে পাস দেন তিনি। প্লেসিং শটে বাঁ কোনা দিয়ে বল জালে পাঠান এই উইঙ্গার।

 

 

তিন মিনিটের মধ্যে অর্থাৎ ২২ মিনিটের মাথায় আবার এগিয়ে যায় জাপান। এবার গোল করেন আয়াসে উয়েদা। জুনয়া ইতো ডান প্রান্ত দিয়ে সতীর্থকে পাস দেন। তিনিও ডি বক্সে গড়ানো পাস বাড়ালে তা ইতোর পায়ে লেগে সতীর্থ উয়েদার পায়ে লেগে জালে জড়িয়ে যায়। ২-১ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় জাপান।

দ্বিতীয়ার্ধে জার্মানি দুটি গোল খায় নিজেদের ভুলে। নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে তাকুমা আসানো গোল করেন। মাঝমাঠে জার্মানির খেলোয়াড়ের ভুলে বল পেয়ে যান টেক কুবো। রিয়াস সোসিয়েদাদের এই উইঙ্গার দারুণ স্প্রিন্টে জার্মানির ডিবক্সে ঢুকে পড়েন। তার সামনে ছিল শুধুই টার স্টেগান। কিন্তু তিনি শট না নিয়ে পাশেই থাকা আসানোকে পাস দেন। ফাঁকা জালে বল পাঠান আসানো।

 

এর দুই মিনিট পরই জার্মানির জালে গোলের হালি পুর্ণ করেন তানাকা। এই গোলের কারিগরও কুবো।  ডান প্রান্তে বল পেয়ে কিছুটা দৌড়ে জার্মানির দুই খেলোয়াড়কে পরাস্ত করে দারুণ ক্রস করেন কুবো। তানাকার হেডটা খুব একটা জোরাল না হলেও পরাস্ত হন  টার স্টেগান।

 

 

সূত্র: চ্যানেল ২৪

Print Friendly and PDF