চট্টগ্রাম, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪ , ১০ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে সভা ও দোয়া মাহফিল করেছে বঙ্গবন্ধু পরিষদ ভিয়েনা অস্ট্রিয়া।

প্রকাশ: ২৮ আগস্ট, ২০২৩ ১০:১৫ : পূর্বাহ্ণ

 জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮তম শাহাদাত  বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে ভিয়েনায় এক শোক সভার আয়োজন করা হয়। মঙ্গলবার (১৫ আগষ্ট) অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনার পারফেক্টিটাসে ২৩ নাম্বার ডিস্ট্রিক্টের  রেস্টুরেন্টে হলে স্থানীয় সময় বেলা ১১টায়. এই শোকাবহ ১৫ আগষ্ট স্মরণে এই আলোচনা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে সংগঠনটি। বঙ্গবন্ধু পরিষদ ভিয়েনা অস্ট্রিয়া সভাপতি রবিন মোহাম্মদ আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনার দায়িত্ব পালন করেন বঙ্গবন্ধু পরিষদ ভিয়েনা অস্ট্রিয়া সাধারণ সম্পাদক বিকাশ ঘোষ।

 

অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন বায়তুল মোকারম মসজিদের ইমাম হাফেজ মেহেদী হাসান। তারপর বঙ্গবন্ধু পরিষদ ভিয়েনা অস্ট্রিয়া নেতৃবৃন্দ. প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথি অল ইউরোপিয়ান আওয়ামীলীগের সন্মানিত সভাপতি নজরুল ইসলাম বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। তারপর সকলে এক মিনিট দাঁড়িয়ে নিরবতা পালন করেন।অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের মাননীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেনের একটি লিখিত বাণী পাঠ, বক্তব্য পড়ে শুনান মালিহা রবিন। তাছাড়াও আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য ও ১৪দলের নেতা আমির হোসেন আমু বাংলাদেশ থেকে টেলিফোনে সরাসরি মূল্যবান বক্তব্য রাখেন।

 

১৫ আগষ্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এই আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি অল ইউরোপিয়ান আওয়ামীলীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম সহ নেতৃবৃন্দ বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশে বিভিন্ন অবদানের কথা তুলে ধরেন।অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ দূতাবাসের অনারারী কনসুলার এস গ্রাফ, সর্ব ইউরোপিয়ান মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সহ সভাপতি
বীর মুক্তিযোদ্ধা বিশেষ অতিথি বায়োজিদ মীর, বিশেষ অতিথি অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের  সভাপতি খন্দকার হাফিজুর রহমান নাসিম, বিশেষ অতিথি অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের   সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম কবির।

 

আরও বক্তব্য রাখেন যথাক্রমে আওয়ামীলীগ অস্ট্রিয়ার সিনিয়র সহ সভাপতি আবদুল জলিল, বঙ্গবন্ধু পরিষদ অস্ট্রিয়ার সহ সভাপতি রতন সাহা,
শ্যামল হোসেন,রুহি দাস ও বঙ্গবন্ধু পরিষদ ভিয়েনা অস্ট্রিয়া সাংগঠনিক সন্পাদক কাজী ইকবাল, সহ-সাধারন সণ্পাদক মোঃ নোমান, মহিলা সন্পাদিকা মায়া ফিরোজা হাসান, সাংস্কৃতিক সন্পাদিকা নুসরাত সুলতানা মিষ্টি, কোষাধক্ষ্য মালিহা প্রমুখ।পরে ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগষ্ট বঙ্গবন্ধু সহ নিহত সকল শহীদের রুহের মাগফেরাতে কামনা করে দোয়া করা পরিচালনা করেন হাফেজ মেহেদী হাসান। অনুষ্ঠানে বিপুল সংখ্যক লোকের উপস্হিতি ছাড়াও কমিউনিটির অনেক বিশিষ্ট ব্যক্তি বর্গ ও বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

অনুষ্ঠানের সভাপতির বক্তব্যে রবিন মোহাম্মদ আলীর, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের সকল শহিদ এবং মুক্তিযুদ্ধের সকল শহিদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর অসামান্য নেত্বত্বের বর্ণনা দিয়ে বলেন বঙ্গবন্ধু আজীবন শোষিত মানুষের অধিকার আদায়ে সংগ্রাম করে গেছেন। তাঁর বলিষ্ঠ নেতৃত্বেই নিরস্ত্র বাঙালি শক্তিশালী পাক-হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণে অনুপ্রাণিত হয়। তিনি বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে সবাইকে একসাথে কাজ করতে আহ্বান জানান। বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীরা প্রবাসে আত্নগোপন করে আছে, তাদেরকে আইনের আওতায় আনতে হবে। যে রায় হয়েছে   তা বাস্তবায়ন করতে হবে।

 

 

সবশেষে, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট শাহাদাতবরণকারী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের সকল শহিদ ও মুক্তিযুদ্ধের সকল শহিদদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা  এবং দেশ ও জাতির শান্তি, অগ্রগতি এবং সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।বঙ্গবন্ধু পরিষদ অস্ট্রিয়ার সভাপতি রবিন মোহাম্মদ আলীর সমাপনী বক্তব্যের পর সাধারণ সম্পাদক বিকাশ ঘোষ বঙ্গবন্ধু পরিষদ অস্ট্রিয়ার পক্ষ থেকে অনুষ্ঠানে উপস্থিত সকলকে মধ্যাহ্নভোজে আপ্যায়ন করা হয়। দিবসটির কার্যক্রমের সমাপ্তি ঘটে।

 

Print Friendly and PDF