চট্টগ্রাম, মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪ , ৩রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আমদানি বাড়ায় কেজিতে ৬০ টাকা কমেছে কাঁচামরিচের দাম

প্রকাশ: ২৫ আগস্ট, ২০২৩ ৪:১৪ : অপরাহ্ণ

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে কাঁচামরিচের আমদানি বাড়ায় দেশের বাজারে চাহিদার তুলনায় পণ্যটির সরবরাহ বেড়েছে। এতে করে কেজিতে দাম কমেছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা। দু’দিন আগেও বন্দরে প্রতি কেজি কাঁচামরিচ ১৬০ টাকা দরে বিক্রি হলেও বর্তমানে তা কমে প্রকারভেদে ১’শ থেকে ১১০টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। কাঁচামরিচের দাম কমায় খুশি বন্দরে কিনতে আসা পাইকারসহ নিম্ন আয়ের মানুষজন।

হিলি স্থলবন্দরে কাঁচামরিচ কিনতে আসা তোফাজ্জল হোসেন বলেন, বাজারে দেশিয় কাঁচামরিচের দাম এখনো বেশি থাকায় চাহিদা রয়েছে আমদানিকৃত ভারতীয় কাঁচামরিচের। সেই চাহিদা মেটাতে হিলি স্থলবন্দর থেকে কাঁচামরিচ ক্রয় করে রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন মোকামে সরবরাহ করে থাকি। বেশ কিছুদিন ধরে আমদানি অব্যাহত থাকায় দাম স্থিতিশীল ছিল। কিন্তু হঠাৎ করে বৃষ্টিপাত হওয়ায় গত কয়েকদিন ধরেই বন্দর দিয়ে কাঁচামরিচ আমদানি কমে যাওয়ার পাশাপাশি দাম ঊর্ধ্বমুখী হয়ে যায়। এতে করে আমাদের কিনতে যেমন বাড়তি টাকা গুনতে হচ্ছিল তেমনি মোকামে চাহিদা কমায় কিনতেও সমস্যা হচ্ছিল। তবে গতকাল বৃহস্পতিবার বন্দর দিয়ে কাঁচামরিচের আমদানি অনেকটাই বেড়েছে। এতে করে কাঁচামরিচের দাম কেজিতে ৫০ থেকে ৬০ টাকার মতো কমেছে। এতে করে আমাদের কিনতে যেমন সুবিধা হচ্ছে টাকা কম লাগছে তেমনি মোকামে পাঠাতেও ভালো হচ্ছে মানুষ কম দামে খেতে পারছে।

কাঁচামরিচ আমদানিকারক আনোয়ার হোসেন বলেন, সম্প্রতি ভারতে বৃষ্টিপাত হওয়ায় কৃষকরা ক্ষেত থেকে কাঁচামরিচ তুলতে পারেননি। যার কারণে ভারতের মোকামে কাঁচামরিচের সররবাহ কমায় বন্দর দিয়ে এর আমদানি কমে যায়। এতে করে দেশের বাজারে চাহিদার তুলনায় পণ্যটির সরবরাহ কমায় দাম ঊর্ধ্বমুখী হয়। তবে বর্তমানে আবহাওয়া ভালো হওয়ায় কৃষকরা ক্ষেত থেকে কাঁচামরিচ তুলতে শুরু করেছেন। যার ফলে ভারতের বাজারে কাঁচামরিচের সরবরাহ বাড়ায় দাম কমেছে। এতে করে বন্দর দিয়ে কাঁচামরিচের আমদানি বেড়েছে। একইভাবে বন্দরের অনেক আমদানিকারক কাঁচামরিচ আমদানি শুরু করেছে। যার ফলে দুদিন পূর্বে বন্দর দিয়ে ৩ থেকে ৪ ট্রাক কাঁচামরিচ আমদানি হলেও গতকাল বন্দর দিয়ে একদিনেই ১৩টি ট্রাক কাঁচামরিচ আমদানি হয়েছে। একইভাবে দেশের বিভিন্ন স্থলবন্দর দিয়ে কাঁচামরিচ আমদানি অব্যাহত রয়েছে এতে করে দেশের বাজারে চাহিদার তুলনায় কাঁচামরিচের সরবরাহ বাড়ায় দাম কমতে শুরু করেছে। আমদানির এমন ধারা অব্যাহত থাকলে দাম বাড়বেনা বলেও জানিয়েছেন তিনি।

 

 

হিলি স্থলবন্দরের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন বলেন, বন্দর দিয়ে কাঁচামরিচের আমদানি অব্যাহত রয়েছে। তবে আমদানির পরিমান আগের তুলনায় বেড়েছে। মঙ্গলবার বন্দর দিয়ে ৪টি ট্রাকে ২৯ টন ৮৫ কেজি কাঁচামরিচ আমদানি হয়েছে। বুধবার বন্দর দিয়ে ৩টি ট্রাকে ২৫ টন ২৪০ কেজি কাঁচামরিচ আমদানি হয়েছে। এছাড়া গতকাল বৃহস্পতিবার বন্দর দিয়ে ১৩টি ট্রাকে ১০৫ টন ২শ কেজি কাঁচামরিচ আমদানি হয়েছে। বন্দর দিয়ে কাঁচামরিচ আমদানির ফলে সরকারের রাজস্ব আহরণ যেমন বেড়েছে তেমনি বন্দর কর্তৃপক্ষের দৈনন্দিন আয় বেড়েছে। এছাড়া কাঁচামরিচ যেহেতু একটি কাঁচাপণ্য গরম ও বৃষ্টিতে দ্রুত পঁচে নষ্ট হয়ে যায় তাই কাস্টমসের কার্যক্রম শেষে দ্রুত যেন আমদানিকারকরা খালাস নিতে পারেন সেজন্য বন্দর কর্তৃপক্ষ সবধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করে রেখেছে।

প্রসঙ্গত, দেশে কাঁচামরিচের বাজার অস্থিতিশীল হয়ে উঠলে গত ২৫ জুন কাঁচামরিচ আমদানির অনুমতি দেয় সরকার। এর ফলে দীর্ঘ ১০ মাস বন্ধের পর গত ২৬ জুন ভারত থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে কাঁচামরিচ আমদানি শুরু হয়। হিলি স্থলবন্দরের কয়েকজন আমদানিকারক বেশ কয়েক হাজার টন কাঁচামরিচ আমদানির অনুমতি পেয়েছেন। এরপর থেকে তারা নিয়মিতভাবে কাঁচামরিচ আমদানি অব্যাহত রেখেছেন।

সূত্র: চ্যানেল ২৪

Print Friendly and PDF