চট্টগ্রাম, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪ , ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ডলারের বিপরীতে দুই মুদ্রায় ঋণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত ব্রিকসের

প্রকাশ: ২৩ আগস্ট, ২০২৩ ১২:১৮ : অপরাহ্ণ

ডলারের বিকল্প হিসেবে স্থানীয় মুদ্রায় লেনদেন বাড়ানোর পরিকল্পনা নিয়েছে ব্রিকস দেশগুলো। পরিকল্পনার অংশ হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকান ও ব্রাজিলীয় মুদ্রায় ঋণ দেওয়ার কথা জানিয়েছেন ব্রিকস নিয়ন্ত্রিত নিউ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের (এনডিবি) প্রেসিডেন্ট দিলমা রুসেফ। যখন যুক্তরাষ্ট্রসহ ইউরোপীয় দেশগুলোর নিষেধাজ্ঞায় রাশিয়ার অর্থনীতি অনেকটাই কোণঠাসা এবং ভবিষ্যৎ মার্কিন নিষেধাজ্ঞার আতঙ্কে চীনসহ অনেক দেশ; ঠিক সেই সময় এমন সিদ্ধান্ত নিল ব্রিকস।

পাঁচটি দেশের অর্থনেতিক জোট হলো ব্রিকস।

দেশ পাঁচটি হলো, ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন ও সাউথ আফ্রিকা। এবার জোহানেসবার্গে বসছে ব্রিকসের ১৫তম সম্মেলন।

ব্রাজিলের সাবেক নেতা দিলমা রুসেফ সম্প্রতি ফিন্যানশিয়াল টাইমসকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে নতুন এই পরিকল্পনার কথা জানান। তিনি বলেন, সাংহাইভিত্তিক ঋণদাতা দেশগুলোর প্রায় ১৫টি দেশ ব্রিকসের সদস্য হওয়ার আবেদন করেছে। এর মধ্যে পাঁচটি দেশকে সদস্য অন্তর্ভুক্তিতে অনুমোদন দেওয়ার কথা বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে। তবে কোন পাঁচটি দেশ—এ বিষয়ে তিনি কিছু জানাননি।

 

 

তিনি আরও বলেন, ‘এই বছরে আমরা আট থেকে ১০ বিলিয়ন ডলার ঋণ দেওয়ার পরিকল্পনা নিয়েছি। এর মধ্যে প্রায় ৩০ শতাংশ স্থানীয় মুদ্রায় দিতে চাই। ’

দিলমা রুসেফ বলেন, ‘এনডিবি দক্ষিণ আফ্রিকায় ঋণ দেওয়ার জন্য র‌্যান্ডে ঋণ ইস্যু করবে। একই সঙ্গে ব্রাজিলকেও ঋণ দেবে। আমরা একই মুদ্রায় লেনদেন করতে ঋণ ইস্যু করার চেষ্টা করে যাচ্ছি। ’

এনডিবি হচ্ছে ব্রিকস জোটের ফ্ল্যাগশিপ আর্থিক প্রকল্প। ব্যাংকটির লক্ষ্য হচ্ছে উদীয়মান দেশগুলোতে অর্থায়ন এবং আর্থিক ক্ষেত্রে ডলারের আধিপত্য কমিয়ে আনা।

বর্তমানে এনডিবির সদস্য দেশ পাঁচ থেকে বেড়ে আট হয়েছে। ব্যাংকটি শুধু সদস্য দেশগুলোকে ঋণ দিয়ে থাকে।

 

 

বিশ্লেষকরা বলছেন, স্থানীয় মুদ্রায় তহবিল সংগ্রহ এবং নতুন সদস্যদের কাছ থেকে মূলধন সংগ্রহ করতে পারলে কঠিন এ সময়ে এনডিবি মার্কিন অর্থবাজারের ওপর নির্ভরতা কমাতে পারবে। স্থানীয় মুদ্রায় ঋণ দিতে বাণিজ্য ও আর্থিক লেনদেনে ডলারের বিকল্প হিসেবে এটি উৎসাহিত করবে। আইএমএফ ও বিশ্বব্যাংকের মতো মার্কিন আধিপত্যকারী আর্থিক প্রতিষ্ঠানের বিকল্প হিসেবে ২০১৫ সালে ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত, চীন ও দক্ষিণ আফ্রিকার সমন্বয়ে গঠিত হয় ব্রিকস।

অন্তর্ভুক্তির চূড়ান্ত পর্যায়ে থাকা উরুগুয়েসহ নন-ব্রিকস দেশ মিসর, বাংলাদেশ ও সংযুক্ত আরব আমিরাতকে অবকাঠামোগত টেকসই উন্নয়নের জন্য ৩৩ বিলিয়ন ডলার ঋণ দিয়েছে এনডিবি।

 

 

রুসেফ বলেন, স্থানীয় মুদ্রায় ঋণ দেওয়ার ফলে ঋণগ্রহীতারা ঝুঁকিমুক্ত থাকবে। সুদহারের তারতম্যও এড়াতে পারবে। তবে তিনি বলেন, স্থানীয় মুদ্রাই শুধু ডলারের বিকল্প নয়, এর বাইরে আরো বিভিন্ন পদ্ধতি স্থাপনের চেষ্টা করা হচ্ছে। রাজনৈতিকভাবে চিন্তা না করে বিশ্বব্যাংক ও আইএমএফ থেকে নিজেদের আলাদা করার চেষ্টা করছে ব্রিকস ব্যাংক। রুসেফ বলেন, ‘আমরা যেকোনো ধরনের শর্ত প্রত্যাখ্যান করি। ঋণ দেওয়ার ক্ষেত্রে অন্যরা যে শর্ত দেয় আমরা সেগুলোকে এড়িয়ে চলি। প্রতিটি দেশের নিজস্ব নীতিকে আমরা সম্মান করি। ’

রুসেফ বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি, ব্যাংকটির প্রসারের জন্য বিশাল ক্ষেত্র রয়েছে। প্রতিষ্ঠার সাত বছরে এটি বিশ্বের উন্নয়ন ব্যাংকগুলোর একটি। আমরা নিজেদের উন্নয়নশীল দেশ এবং উদীয়মান বাজারের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাংকে পরিণত করব। আমাদের ফোকাস করতে হবে যে উন্নয়নশীল দেশগুলোর নিজেদের জন্যই এই ব্যাংকের প্রতিষ্ঠা। ’

 

 

সূত্র : ফিন্যানশিয়াল টাইমস

Print Friendly and PDF