চট্টগ্রাম, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪ , ২রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ডেঙ্গু পরিস্থিতির আরও অবনতি

প্রকাশ: ১৯ আগস্ট, ২০২৩ ৯:৫৫ : পূর্বাহ্ণ

সরাদেশে ডেঙ্গু পরিস্থিতির অবনতি অব্যাহত রয়েছে। আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বেড়েই চলছে। গত জুলাই মাসের ৩১ দিনে ডেঙ্গুতে যতজন আক্রান্ত হয়েছেন, তার চেয়ে বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে চলতি মাসের প্রথম ১৭ দিনে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে গত জুলাই মাসে ৪৩ হাজার ৮৫৪ জন হাসপাতালে ভর্তি হন। আগস্টের ১৭ দিনে সেই সংখ্যা এসে দাঁড়ায় ৪৪ হাজার ৪৫ জনে। জুলাইয়ে মৃত্যু হয়েছিল ২০৪ জনের। আগস্টে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ২০২ জনের।

হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের ইনচার্জ মো. জাহিদুল ইসলামের সই করা প্রতিবেদনে জনানো হয়, বৃহস্পতিবার (১৭ আগস্ট) সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে চলতি বছর ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৪৫৩ জন। একই সময়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন এক হাজার ৫৬৫ জন ডেঙ্গুরোগী। এর মধ্যে ৮০৪ জন ঢাকার বাসিন্দা। আর ৭৬১ জন ঢাকার বাইরের।

গত ১ জানুয়ারি থেকে ১৮ আগস্ট পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৯৫ হাজার ৮৭৭ জন। তাদের মধ্যে ঢাকার বাসিন্দা ৪৬ হাজার ৯৩৩ জন। আর ৪৮ হাজার ৯৪৪ জন ঢাকার বাইরের হাসপাতালগুলোতে ভর্তি হয়েছেন।

 

 

জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সারাদেশে ডেঙ্গু পরিস্থিতির যেভাবে অবনতি হচ্ছে তাতে এবার অন্যান্য বছরের রেকর্ড ছাড়াতে পারে। ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সম্মিলিত উদ্যোগ জরুরি বলেও মনে করছেন তারা।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (হাসপাতাল ও ক্লিনিক) ডা. হাবিবুল আহসান তালুকদার বলেন, রাজধানীতে ডেঙ্গু সংক্রমণ পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হলেও ঢাকার বাইরে সাত জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। এসব এলাকার ডেঙ্গু প্রকোপ নিয়ন্ত্রণে সিভিল সার্জন ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

 

 

২০২০ সালে ডেঙ্গু সংক্রমণ তেমন একটা দেখা না গেলেও ২০২১ সালে সারাদেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হন ২৮ হাজার ৪২৯ জন। একই বছর দেশব্যাপী ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ১০৫ জনের মৃত্যু হয়।২০২২ সালে ডেঙ্গুতে ২৮১ জন মারা যান। ওই বছরের শেষ মাস ডিসেম্বরে ডেঙ্গুতে ২৭ জনের মৃত্যু হয়।

 

Print Friendly and PDF