চট্টগ্রাম, রোববার, ২৬ মে ২০২৪ , ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রাম নগরে জলাবদ্ধতার পর এবার ভাঙা সড়কে দুর্ভোগ

প্রকাশ: ১৬ আগস্ট, ২০২৩ ৯:৪৭ : পূর্বাহ্ণ

চট্টগ্রামের সড়ক থেকে পানি নেমে যাওয়ার পর এখন নতুন ভোগান্তি রাস্তার খানাখন্দ। টানা বৃষ্টি আর জলাবদ্ধতার পর এখন সড়কে চলাই যেন দায়। এ যেমন অটোরিকশার চাকা ভেঙে চট্টগ্রাম নগরীর বহদ্দারহাটে মাঝ রাস্তায় দীর্ঘ সময় আটকে আছেন চালক তৈয়বুর রহমান। অপেক্ষা মেরামতের। যাতে তার গুনতে হবে কমপক্ষে পাঁচ হাজার টাকা।

তৈয়বের মতো সবাইকেই ভাঙা রাস্তায় গাড়ি চালাতে যথেষ্ট বেগ পোহাতে হচ্ছে। প্রতিদিনই ঘটছে কোনও না কোনও দুর্ঘটনা। চালকরা জানান গাড়ি চালাতে তাদের কষ্টের কথা। বলেন, খানাখন্দ, পানি সব মিলিয়ে গাড়ি চালাতে কষ্ট হয়।

কয়েকদিনের ভারী বর্ষণ আর জলাবদ্ধতায় সড়কের এমন বেহাল দশা নগরীর মুরাদপুর, আগ্রাবাদ, হালিশহর, পতেঙ্গাসহ অনেক এলাকায়। খানাখন্দে ক্ষতবিক্ষত রাস্তা। সিটি কর্পোরেশনের হিসাব অনুসারে, প্রায় ৫০ কিলোমিটার রাস্তা, দুই কিলোমিটার ফুটপাত আর দুই কিলোমিটার নর্দমা নষ্ট হয়েছে।

 

 

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম বলেন, নষ্ট রাস্তা মেরামত ব্যয় বাবদ আমাদের ৬০ কোটি টাকার মত লাগবে। রাস্তা ঠিক করতে যদি দেরি হয় তবে সেক্ষেত্রে খরচ আরও বাড়তে পারে। তাই দ্রুত আমাদের রাস্তা ঠিক করা দরকার।

ভাঙা রাস্তা আর গর্তে ইট-বালু দিয়ে সাময়িক চলাচল উপযোগী করছে কর্পোরেশন। দু-একমাসের মধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত সড়কগুলোর মেরামত শেষ হবে বলে জানান সিটি মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী।

তিনি বলেন, আশা করি দু’এক মাসের মধ্যেই পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে। একটু সময় লাগবে তবে সব রাস্তা আগের মত মসৃণ হয়ে যাবে।জলাবদ্ধতা আর বৃষ্টিতে এখন পর্যন্ত সড়কসহ নানাখাতে শতকোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি সিটি কর্পোরেশনের।

Print Friendly and PDF