চট্টগ্রাম, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪ , ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সিসিক নির্বাচন: সিলেটে কয়েকটি কেন্দ্রে পানি, ভোটের দিনেও বৃষ্টির শঙ্কা

প্রকাশ: ২০ জুন, ২০২৩ ১১:২৫ : পূর্বাহ্ণ

আগামীকাল বুধবার (২১ জুন) সিলেটে অনুষ্ঠিত হবে সিটি করপোরেশন নির্বাচন। একযোগে ১৯০টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ করা হবে। এর মধ্যে টানা ছয়দিন ধরে সিলেটে হচ্ছে ভারী বৃষ্টিপাত। যার ফলে নগরের অনেক জায়গায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। এরই মধ্যে কয়েকটি ভোটকেন্দ্রের ভেতরে পানি ঢুকে পড়েছে। আরও কয়েকটি ভোটকেন্দ্রের মাঠে দেখা দিয়েছে জলাবদ্ধতা। বৃষ্টি অব্যাহত থাকায় আরও কয়েকটি কেন্দ্র তলিয়ে যাওয়ার শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

এদিকে ধীরে ধীরে বাড়ছে সুরমা নদীর পানি। ফলে বন্যার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে সিলেটে। তাই পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছে নির্বাচন কমিশন। ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের একাধিক কেন্দ্রীয় নেতা অবস্থান করছেন সিলেটে। তারাও শঙ্কিত টানা এ বৃষ্টি নিয়ে।

 

 

সরেজমিনে দেখা যায়, সিলেট নগরের ভার্তখলা এলাকার নছিবা খাতুন উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় ও পাশের আরেকটি প্রাথমিক বিদ্যালয় বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে। বিদ্যালয়গুলোর শ্রেণিকক্ষের ভেতরেও পানি ঢুকে পড়েছে। জলমগ্ন হয়ে পড়েছে কুমারগাঁও এলাকার মইয়াচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ও। এই তিনটি বিদ্যালয়কেই সিটি নির্বাচনের ভোটকেন্দ্র হিসেবে নির্ধারণ করেছে ইসি।

পানি উঠে যাওয়ায় এসব কেন্দ্রে কীভাবে ভোটগ্রহণ করা হবে এমন প্রশ্নে সিলেট সিটি নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ফয়সল কাদের বলেন, সিলেটে চার/পাঁচদিন ধরে বৃষ্টি হচ্ছে। এতে ৪/৫টি কেন্দ্রের মাঠে পানি উঠেছে। তবে কোনো কেন্দ্রের ভেতরে পানি প্রবেশের খবর আমরা পাইনি।

ফয়সল কাদের আরও বলেন, আমাদের নির্বাচনী প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন। মঙ্গলবার সকাল ১১টায় আবুল মাল আবদুল মুহিত কমপ্লেক্স থেকে কেন্দ্রগুলোতে নির্বাচনী সরঞ্জাম পাঠানো শুরু হবে। আর সিসি ক্যামেরা লাগানোর কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। মোট ১৯০টি কেন্দ্রের ১ হাজার ৩৬৭টি কক্ষ ও কক্ষের আশপাশে ১৬শ’র বেশি সিসি ক্যামেরা লাগানো হয়েছে।

এদিকে শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকলেও জাতীয় পার্টির প্রার্থী নিয়ে বেশ অস্বস্তিতে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়রপ্রার্থী। কাউন্সিলর পদে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের আভাসও আছে।

সিলেটে ১৯০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে সিটি নির্বাচনের ভোটকেন্দ্র করা হয়েছে। এর মধ্যে একটি নগরের ৩৫নং ওয়ার্ডের সৈয়দ জাহান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র। গত ১৪ জুনের টানা বৃষ্টিতে এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পানি উঠে যায়। যদিও কয়েক ঘণ্টার পরই এই পানি নেমে গেছে।

 

 

সিলেট আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, রোববার সকাল ৬টা থেকে সোমবার সকাল ৬টা পর্যন্ত সিলেটে ১১২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। আর সোমবার সকাল ৬টা থেকে দপুর ১২টা পর্যন্ত ১১১ দশমিক ২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

ভোটের দিনও বৃষ্টির শঙ্কা রয়েছে বলে জানিয়েছেন সিলেট আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়াবিদ শাহ মো. সজিব হোসাইন।

 

 

সিলেট জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আসিফ আহমেদ বলেন, সিলেটের প্রধান দুই নদী সুরমা ও কুশিয়ারা। সোমবার (১৯ জুন) সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত সুরমা নদীর কানাইঘাট পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। এ পয়েন্টে নদীর পানি রেকর্ড করা হয় ১৩.২৬ সেন্টিমিটার।

সুরমা নদীর সিলেট সদর পয়েন্টেও পানি বেড়েছে। সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত পানি রেকর্ড হয়েছে ১০.৩৫ সেন্টিমিটার। এ পয়েন্টের বিপৎসীমা হচ্ছে ১০.৮০ সেন্টিমিটার।

 

 

সূত্র – চ্যানেল২৪

Print Friendly and PDF