চট্টগ্রাম, বুধবার, ২২ মে ২০২৪ , ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘মানুষ আপন টাকা পর, যত পারিস মানুষ ধর’-কাজী বাক্কিবিল্লাহ্

প্রকাশ: ১১ জুন, ২০২৩ ২:৪৭ : অপরাহ্ণ

শরীফ হোসেন রিংকন,  লক্ষ্মীপুর: ‘মানুষ আপন টাকা পর, যত পারিস মানুষ ধর’ কথাগুলো বলেছিলেন রায়পুর পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি আলহাজ্ব কাজী জামশেদ কবির বাক্কিবিল্লাহ্।আসলে উনি ব্যক্তি জীবনে সাধারণ মানুষের সাথে চলাফেরা এবং বন্ধুত্বকেই বেশি প্রাধান্য দেন বলেই এমন মন্তব্য করেছেন বলে জানান তিনি। তিনি আরও বলেন, পরকালকে বিশ্বাস করে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি পেতে মানুষকে ভালোবাসার বিকল্প নেই।
রায়পুর পৌর আওয়ামী লীগ সদস্য পীরজাদা মোহাম্মদ সোহরাব হোসেন মিশরী বলেন, আমার ক্ষুদ্র জীবনে তাঁর সাথে চলার সৌভাগ্য হয়েছে।বহু কিছু জেনেছি এবং শিখেছি তাঁর কাছ থেকে।
আমি দেখেছি উনার কোন শত্রুও যদি বিপদে পড়ে উনার নিকট আশ্রয় চান, তাকেও তিনি অকপটে আশ্রয় দেন এবং আদর আপ্যায়নও চলে নিতান্তই মেহমানের মতো।উনি বহুগুনে গুনান্বিত অত্যন্ত প্রতিভাবান একজন মানুষ। তাঁর রসনা বিলাস অবিশ্বাস্য! যারা অন্তত একবেলা কাজী বাক্কিবিল্লাহ্ ভাইয়ের সাথে খাবার খেয়েছেন তারা অবশ্যই সেই সময়টিকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবেন।কারণ, তিনি অন্য দশ জনের মতো খাওয়া-দাওয়ায় কৃপণতা করেন না। সকলের সাথে বসে নিজে যা খান সবাইকেও তা-ই আপ্যায়ন করান।
রায়পুর উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা কাজী হেমায়েত কাদের পানু বলেন, করোনাকালীন সময়ে লক্ষ্মীপুর-রায়পুরের বিপদগ্রস্ত মানুষদের পাশে দাঁড়িয়ে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিলেন তিনি। নগদ অর্থ ও চিকিৎসা সামগ্রী বিতরণের পাশাপাশি দলীয় নেতা-কর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খোঁজ খবর নিয়েছিলেন।এ্যাম্বুলেন্স, মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, অক্সিজেন সিলিন্ডার এবং মৃত ব্যক্তির দাফনের ব্যবস্থাও করেছিলেন ব্যক্তিগত অর্থায়নে।
এছাড়াও লোকমুখে শোনা যায়, বিরোধী আমল থেকে শুরু করে সরকার গঠন হওয়া পর্যন্ত কাজী বাক্কিবিল্লাহ্ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ রায়পুর উপজেলার একজন প্রাণ পুরুষ। যার একক নেতৃত্ব এবং শ্লোগানে মুখরিত হয়ে ঊঠে রাজপথ। সকল দলীয় কার্যক্রমেও তাঁর ভূমিকা অনন্যসাধারণ। যার বলিষ্ঠ বক্তব্যে রাজনীতির মঞ্চ কেঁপে ওঠে। এতে উৎসাহ পায় নতুন প্রজন্ম।
ছাত্রলীগ নেতা রনি হোসেন বলেন, এসব কিছুর মাঝেও পরকালে শান্তি লাভের আশায় দ্বীনের কাজও করে চলেছেন তিনি। পাঁচ ওয়াক্ত নিয়মিত নামাজের পাশাপাশি তাহাজ্জুদও আদায় করেন তিনি। বিশ্ব ওলি খাজাবাবা ফরিদপুরীর (কুঃছেঃআঃ) সান্নিধ্যে গিয়ে তিনি দায়িত্বভার গ্রহণ করেন-আটরশি পাক দরবার শরীফ কর্মী গ্রুপ বৃহত্তর চট্রগ্রাম বিভাগের প্রধান ও কেন্দ্রীয় সমন্বয় পরিষদের অন্যতম সদস্য। এর সুবাদে দাওয়াতি মিশনে বাংলাদেশের প্রতিটি জেলায় রয়েছে উনার বিচরণ।
রায়পুর পৌর আওয়ামী লীগ সূত্র জানায়, সম্প্রতি তিনার মেয়ে জামাতা লন্ডন প্রবাসী আমিনুর রহমান ভূঁইয়ার দাওয়াতে সস্ত্রীক সেখানে বেড়াতে যান তিনি এবং মহান আল্লাহ চাইলে ঠিক সময়মত ফিরেও আসবেন বলে জানান তিনি।
রায়পুর পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি কাজী বাক্কিবিল্লাহ্ জানান, আমি তৃনমুল থেকে স্কুল ও কলেজ ছাত্রলীগ হতে রাজনীতি করে আজকের অবস্থানে এসেছি। রাজনীতি আমার রক্তের সাথে মিশে গেছে। আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে লালন করি এবং দেশরত্ন শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বকে প্রাধান্য দিয়ে ডিজিটাল বাংলাদেশের রুপকার সজীব ওয়াজেদ জয়ের ভবিষ্যৎ উদ্যোগকে নতুন প্রজন্মের নিকট জানান দিতে সবসময় রাজপথে ছিলাম, আছি এবং থাকবো ইনশাআল্লাহ্।
আমি পূর্ব থেকেই আমার উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দকে লন্ডনে আসার বিষয়টি অবগত করেছি।কিছুদিনের জন্য লন্ডনে আমার মেয়ে এবং জামাতার বাসায় স্ত্রীকে নিয়ে বেড়াতে এসেছি। কারো কোনপ্রকার মিথ্যাচারিতায় আপনারা বিভ্রান্ত হবেন না।মহান আল্লাহ চাইলে যথাসময়ে আমি আপনাদের মাঝে ফিরে আসবো ইনশাআল্লাহ্।

Print Friendly and PDF