চট্টগ্রাম, রোববার, ২১ এপ্রিল ২০২৪ , ৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পোর্ট সুদানে পৌঁছেছেন পাঁচ শতাধিক বাংলাদেশি

প্রকাশ: ৩ মে, ২০২৩ ৩:০১ : অপরাহ্ণ

সংঘাত কবলিত সুদানের রাজধানী খার্তুম থেকে বাংলাদেশিদের সরিয়ে নেয়ার কাজ শুরু হয়েছে। তারই অংশ হিসেবে পাঁচ শতাধিক বাংলাদেশি নিরাপদে পোর্ট সুদানে পৌঁছেছেন। সুদানে বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত তারেক আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, মোট ১৩টি বাসের মধ্যে ১০টি বাস ইতোমধ্যে বন্দর সুদানে পৌঁছেছে এবং বাকি তিনটি পথে রয়েছে।

 

 

গত ১৫ এপ্রিল থেকে সুদানে সামরিক বাহিনী ও আধাসামরিক বাহিনী আরএসএফের মধ্যে লড়াই চলছে। সেখানে অবস্থানরত প্রায় দেড় হাজার বাংলাদেশির মধ্যে ৭০০ বাংলাদেশি দেশে ফেরার নিমিত্তে নিজেদের নাম তালিকাভুক্ত করেছেন।

ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত তারেক আহমেদ বলেন, পোর্ট সুদানের একটি স্কুল ভবনে বাংলাদেশিদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে এবং তারা যে কয়েকদিন এখানে থাকবেন তাদের জন্য খাবার সরবরাহ করা হচ্ছে। বিদ্যালয় ভবনটিতে মোট আটটি কক্ষ এবং একটি আচ্ছাদনসহ আরেকটি খোলা জায়গা রয়েছে।

সুদান বন্দর থেকে সৌদি জাহাজে করে বাংলাদেশিদের নিরাপদে জেদ্দায় পাঠানো হবে জানিয়ে ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত বলেন, আমরা অবিলম্বে সৌদি কর্তৃপক্ষকে জানাব যে বাংলাদেশিদের ভিসার জন্য পাসপোর্ট আছে তাদের ভিসার জন্য। এছাড়া যাদের পাসপোর্ট নেই তাদের ট্রাভেল পারমিট দেয়া হবে এবং সৌদি কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হবে।

 

 

সৌদি জাহাজে জায়গা পাওয়া সাপেক্ষে বাংলাদেশিরা জেদ্দায় যাবেন জানিয়ে তিনি বলেন, ওই জাহাজে অন্যান্য দেশের নাগরিকরাও যাতায়াত করছেন।

এদিকে সৌদি আরবের বাংলাদেশ দূতাবাস জানিয়েছে, সার্বিক ব্যবস্থাপনার সুবিধার্থে জেদ্দা কনস্যুলেটের তত্ত্বাবধানে ফেরত আসাদের জেদ্দায় বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল ইংরেজি বিভাগে থাকার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী সৌদি কর্তৃপক্ষকে আশ্বস্ত করেছেন যে সুদান থেকে ফিরে আসা বাংলাদেশিদের ৭২ ঘণ্টার মধ্যে দেশে ফেরত পাঠানো হবে।

 

 

এর আগে মঙ্গলবার রাতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম ফেসবুকে এক পোস্টে জানান, ৬৫০ জন বাংলাদেশিকে নিয়ে বাসগুলো খার্তুম থেকে পোর্ট সুদানের উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ স্থানগুলো তারা পার হয়ে গেছেন। ইনশাআল্লাহ স্থানীয় সময় মধ্যরাত থেকে ভোরের মধ্যে সকলে গন্তব্যে পৌছাবে বলে আশা করা যায়।

 

 

সূত্র: চ্যানেল২৪

Print Friendly and PDF