চট্টগ্রাম, রোববার, ২৬ মে ২০২৪ , ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এশিয়া কাপের টিকিট কেটে পাকিস্তান-ভারতের সঙ্গী নেপাল

প্রকাশ: ২ মে, ২০২৩ ৩:২১ : অপরাহ্ণ

সংযুক্ত আরব আমিরাতকে হারিয়ে এসিসি ‘মেন্স প্রিমিয়ার কাপে’ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে নেপাল। একই সঙ্গে নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথমবারের মতো এশিয়া কাপে খেলাও নিশ্চিত করেছে তারা। ফাইনালে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে হারিয়েছে ৭ উইকেটে। এ জয়ে নিজেদের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো এশিয়া কাপের মূল পর্বে জায়গা করে নিয়েছেন সন্দীপ লামিচানেরা।

বৃষ্টির কারণে রিজার্ভ ডেতে গড়ানো ম্যাচে এদিন আগে ব্যাট করা আরব আমিরাত গুটিয়ে যায় মাত্র ১১৭ রানে। সেই রান টপকাতে নেমে গুলসানের আনবিটেন ৬০ রানে ভর করে ৭ উইকেট হাতে রেখেই বড় জয় নিশ্চিত করে নেপালিরা। এ জয়ে তারা সেপ্টেম্বরে পাকিস্তানে হতে যাওয়া এশিয়া কাপ ‘এ’ গ্রুপে প্রতিপক্ষ হিসেবে পেয়েছে বাবর-রিজওয়ানদের পাকিস্তান ও রোহিত-কোহলিদের ভারতকে।

নেপালের কীর্তিপুরে গতকাল টস জিতে ভেজা আবহাওয়ায় আরব আমিরাতকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় নেপাল। গতকাল বৃষ্টির আগে ২৭.৩ ওভারে ৯ উইকেটে ১০৬ রান তুলেছিল আরব আমিরাত। আজ তারা অলআউট হয়ে ৩৩.১ ওভারে ১১৭ রান তুলে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৬ রান করেন আসিফ খান। বাকিদের মধ্যে কেবল চারজন স্পর্শ করতে পারেন দুই অঙ্কের কোটা। নেপালের পক্ষে একাই চার উইকেট নেন ললিত রাজবংশী। এছাড়া কারান কেসি ও লামিচানে নেন ২ উইকেট করে।

সহজ লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ২২ রানের মধ্যে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়ে নেপাল। চর্তুথ উইকেট জুটিতে দলের হাল ধরেন গুলসান ঝা ও ভীম শারকি। এই দু’জনের ব্যাটে প্রাথমিক বিপর্যয় কাটিয়ে উঠে নেপাল। ভীম একপ্রান্ত আগলে রাখেন, অন্যপ্রান্তে নেপালের ইতিহাস রচনার দিকে ছোটেন গুলসান।

চর্তুথ উইকেট জুটিতে এই দু’জনের অবিচ্ছিন্ন পঞ্চাশোর্ধ রানের জোট জয়ের ভিত গড়ে দেয় নেপালের। হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন গুলসান। শেষ পর্যন্ত ৭ উইকেট ও ১১৭ বল হাতে রেখে বড় জয় নিশ্চিত করার পাশাপাশি, প্রথমবার এশিয়া কাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে নেপাল। ৩ চার ও ৬ ছক্কায় ৬০ রানের আনবিটেন ইনিংস খেলে ম্যাচ সেরা হয়েছেন গুলসান ঝা। ৪ চারে ৩৬ রানে অপরাজিত থাকেন ভীম শারকি। সংযুক্ত আরব আমিরাতে পক্ষে দুই উইকেট নেন রোহান মুস্তাফা।

 

 

সূত্র: চ্যানেল২৪

Print Friendly and PDF