চট্টগ্রাম, রোববার, ২১ এপ্রিল ২০২৪ , ৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিদ্যানন্দকে অ্যাপার্টমেন্ট দিতে চান তসলিমা নাসরিন

প্রকাশ: ১৯ এপ্রিল, ২০২৩ ১২:১৬ : অপরাহ্ণ

সম্প্রতি বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের কার্যক্রম নিয়ে নানা সমালোচনা হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। প্রতিষ্ঠানটির পেজ থেকে একটি কোলাজ ছবি পোস্টের পরই যত সমালোচনার শুরু। এছাড়া কেউ কেউ সংগঠনের অতীতের অন্যান্য কার্যক্রম নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন। দিচ্ছেন পক্ষে-বিপক্ষে মতামতও।

এরই মাঝে বিদ্যানন্দকে নিয়ে একটি পোস্ট দিয়েছেন বিতর্কিত লেখিকা তসলিমা নাসরীন। যে পোস্টের মাধ্যমে তিনি জানিয়েছেন বিদ্যানন্দকে একটি অ্যাপার্টমেন্ট দিতে চান। সেই সঙ্গে বাংলাদেশকে নিয়েও পোস্টে উঠে এসেছে তীর্যক মন্তব্য।

পাঠকের জন্য পোস্টটি হুবহু তুলে ধরা হলো
বাংলাদেশ নামক পোড়া দেশে ভালো কাজের দাম নেই। সত্যিকার দেশপ্রেমের মূল্য নেই। সৎ এবং নিঃস্বার্থ মানুষের জায়গা নেই। ও দেশে সে কারণে আমার জায়গা হয়নি। আমার সততা আর সভ্যতাকে ও দেশ চরম অপমান করেছে, চরম অসম্মান করেছে, সত্য বলেছি বলে আমাকে অন্যায়ভাবে অত্যাচার করেছে। ওই দেশে সত্য ভূলুণ্ঠিত, ওই দেশে মিথ্যের জয়জয়কার। ওই দেশের চরিত্র আমি খুব ভালো করে জানি, ওই দেশকে আমি হাড়ে হাড়ে চিনি।

ওই দেশের মূর্খ ধর্মান্ধরা বিদ্যানন্দ নামের একটি সংস্থার বিরুদ্ধে লেগেছে, যেহেতু বিদ্যানন্দ ভালো কাজ করছে, যেহেতু বিদ্যানন্দ নিঃস্বার্থ এবং সৎ। বিদ্যানন্দ কী কী ভালো কাজ করেছে আমার জানার দরকার নেই। যখন অপশক্তি সরব হয় কারও বিরুদ্ধে, আমি বুঝি সে মানুষটি নিশ্চয়ই মানুষের মঙ্গলের জন্য জীবন উৎসর্গ করেছে। স্বার্থহীনতা ঠিক কী জিনিস এবং মানুষ কেন স্বার্থহীন হয় তা বুঝতে স্বার্থান্ধ লোকের চিরকাল অসুবিধে হয়।
আমি ভাবছি আমার শান্তিনগরের অ্যাপার্টমেন্টটি আমি বিদ্যানন্দকে দান করে দেব। ওই ফ্ল্যাটে বসে আমি এক সময় মানুষকে বিজ্ঞানমনস্ক করার জন্য, সুস্থ সুন্দর অসাম্প্রদায়িক সমাজ গঠনের জন্য, নারীর সমানাধিকারের জন্য জীবনের ঝুঁকি নিয়ে লেখালেখি করেছি। ওই ফ্ল্যাটে বসে বিদ্যানন্দের কর্মীরা মানুষের দারিদ্র ঘোচানোর জন্য, মানুষকে শিক্ষিত এবং সভ্য করার জন্য কাজ করবে। স্বপ্নবান মানুষদের জন্য এটুকু কেন, এর চেয়েও অনেক বেশি করতে  পারি। সৎ এবং নিঃস্বার্থ মানুষরাই আমার উত্তরসুরি, তাদেরই আমি আত্মীয় বলে মানি।
সূত্র – চ্যানেল২৪

Print Friendly and PDF