চট্টগ্রাম, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ , ১৪ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

এবারের আইপিএলে যত নতুন নিয়ম

প্রকাশ: ১ এপ্রিল, ২০২৩ ১:১৩ : অপরাহ্ণ

গতকাল (৩১ মার্চ) থেকে শুরু হয়েছে আইপিএলের ১৬তম আসর। নতুন নিয়মানুযায়ী, এখন থেকে টসের আগে একাদশ চূড়ান্ত করতে হবে না। অধিনায়কেরা একাদশ লেখা একাধিক কাগজ নিয়ে টস করতে নামবেন। এরপর টসের ফলের ওপর নির্ভর করে একাদশ চূড়ান্ত করবেন।

এ জন্য অবশ্য সময় বেশি পাবেন না। টসের পরই ম্যাচ রেফারির কাছে চূড়ান্ত একাদশ দিয়ে দিতে হবে। আইপিএলের প্লেয়িং কন্ডিশনে যুক্ত করা হয়েছে এ নিয়ম।

 

 

ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে টসের পর একাদশ চূড়ান্তকরণের নিয়ম অবশ্য নতুন নয়। গত জানুয়ারিতে দক্ষিণ আফ্রিকার এসএ–টোয়েন্টিতে এ নিয়মের বাস্তবায়ন হয়েছিল। সেখানে নিয়মটি ছিল, টসের সময় ১৩ খেলোয়াড়ের তালিকা দিতেন অধিনায়কেরা।

 

টসের পর দুজনকে বাদ দিয়ে ১১ জনের তালিকা চূড়ান্ত করতেন। এ বিষয়ে টুর্নামেন্ট ডিরেক্টর গ্রায়েম স্মিথ জানিয়েছিলেন, ম্যাচের ফলে টসের প্রভাব কমাতেই এ ব্যবস্থা। টুর্নামেন্ট শেষে দেখা যায়, এসএ–টোয়েন্টির ৩৩ ম্যাচের মধ্যে টসে জেতা দল ১৫টিতে জিতেছে, হেরেছে ১৬টিতে (২টিতে ফল হয়নি)।

 

এবার একই চিন্তা থেকে টসের পর একাদশ চূড়ান্তের পথে হাঁটছে আইপিএল। ভারতের মাটিতে হোম–অ্যাওয়ে ভিত্তিতে সর্বশেষ আইপিএল হয়েছিল ২০১৯ সালে। সেবার ৬০ ম্যাচের মধ্যে টসে জেতা দল জিতেছিল ৩৪টি ম্যাচ, হেরেছিল ২৩টিতে।

 

টসের পর একাদশ চূড়ান্তের পাশাপাশি আরেকটি নিয়মও এবার চালু করতে যাচ্ছে। দলগুলো ম্যাচের মাঝপথে একজন খেলোয়াড় বদলাতে পারবে, যাকে বলা হচ্ছে ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার। টসের সময় একাদশের সঙ্গে চারজন বাড়তি খেলোয়াড়ের নাম দেবেন অধিনায়কেরা। ম্যাচের মাঝে এই চারজন থেকে একজনকে একাদশের অন্য কারও জায়গায় বদল করা যাবে। বদল করা খেলোয়াড় ব্যাটিং–বোলিং দুটিই করতে পারবেন।

 

অর্থাৎ আউট হয়ে যাওয়া ব্যাটসম্যান বা ৪ ওভার বল করে ফেলা বোলারের জায়গায় যিনি নামবেন, তিনি ব্যটিং, বোলিং দুটিই করতে পারবেন। ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার নামানো যাবে ইনিংসের ১৫ ওভারের মধ্যে।

কনকাশনের ক্ষেত্রে অবশ্য সময়ের বাধা নেই। কেউ ব্যাট করার সময় মাথায় চোট নিয়ে মাঠ ছাড়লে নতুন কেউ এসে তাঁর বদলে ব্যাট করতে পারবেন। সে ক্ষেত্রে ১১ জনের বেশি ব্যাটসম্যান এই ইনিংসে ব্যাটিং করতে পারবেন।

 

ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার ও টসের পর একাদশের পাশাপাশি আরও একটি নিয়মে বদল আনা হয়েছে এবার। উইকেটকিপার বা ফিল্ডারের নিয়মের বাইরের নড়াচড়া (আনফেয়ার মুভমেন্ট) ডেলিভারিটি ডেড ঘোষিত হবে, সেই সঙ্গে ৫ রান পেনাল্টিও হবে।

 

সূত্র –নিউজ টোয়েন্টিফোর অনলাইন

Print Friendly and PDF