চট্টগ্রাম, রোববার, ২৩ জুন ২০২৪ , ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফিফা বর্ষসেরা পুরস্কার জিতে যা বললেন মেসি

প্রকাশ: ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ ১১:৫৮ : পূর্বাহ্ণ

ব্যক্তিগত কিংবা দলীয় সব দিক থেকে ২০২২ সালটা স্বপ্নের মতো কেটেছে বিশ্বকাপজয়ী আর্জেন্টাইন অধিনায়ক লিওনেল মেসির। যার ফলে এবারের ফিফা বর্ষসেরার পুরস্কারটি যে তিনি পাচ্ছেন তা অনেকে আগে থেকেই বলেছিলেন। কোন অঘটন ছাড়াই গতরাতে (সোমবার) প্যারিসে জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে তার হাতে তুলে দেয়া হলো ফিফার বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার। ফিফা দ্য বেস্ট হিসেবে এ পুরস্কারটি তিনি দ্বিতীয়বারের মতো জিতলেন। আর ব্যালন ডি অর ও ফিফার সম্মিলিত পুরস্কার হিসেব করলে সংখ্যাটা সাত।

সোমবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দ্য বেস্ট ফিফা ফুটবল অ্যাওয়ার্ডস অনুষ্ঠানে আর্জেন্টাইন সুপার স্টার মেসির হাতে ‘ফিফা দ্য বেস্ট মেনস ফুটবলার অ্যাওয়ার্ড’ তুলে দেন ফিফা সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনো। এ পুরস্কার জেতার পথে তিনি পেছনে ফেলেন কিলিয়ান এমবাপ্পে ও করিম বেনজেমাকে।

গত বছরটা দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন দুই ফরাসি তারকাও। ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সে বিদায়ী বছরে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে ক্যারিয়ারের অন্যতম সেরা একটি বছর কাটিয়েছেন বেনজেমা। জিতেছেন উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, লা লিগা, স্প্যানিশ সুপার কাপ, উয়েফা সুপার কাপ ও ফিফা ক্লাব বিশ্বকাপের শিরোপা। তবে ইনজুরির কারণে জাতীয় দলের হয়ে নিজের শেষ বিশ্বকাপটি রাঙানো হয়নি তার।

তবে কিলিয়ান এমবাপ্পে ছিলেন অনেকটা পিছিয়ে। ক্লাব ফুটবলে একমাত্র লিগ ট্রফি ছাড়া তিনি কিছুই জিততে পারেননি। তবে সুযোগ ছিল টানা দ্বিতীয়বারের মতো ফিফা বিশ্বকাপ ট্রফি জয়ের। ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সে এমবাপ্পে সর্বোচ্চ চেষ্টা করলেও শেষ পর্যন্ত মেসির কাছে শিরোপা হাতছাড়া হয় তার। তবে বিশ্বকাপে ৮ গোল করে পেয়েছেন গোল্ডেন পুরস্কার।

তাই ৩৫ বছর বয়সে এসে ৩৬ বছর পর বিশ্বকাপ জয় করে এখনো বিশ্বকাপ জয়ের ঘোরে রয়েছেন এলএমটেন। সেই স্মৃতি থেকে তিনি এখনো বেরুতে পারছেন না। তার আরেকবার বুঝা গেল প্যারিসের মঞ্চে। ফিফার বর্ষসেরার পুরস্কার হাতে নিয়ে সে স্মৃতি রোমন্থন করে মেসি বলেন, অকল্পনীয়! দুর্দান্ত একটি বছর কাটিয়েছি এবং এখানে থাকতে পারা এবং এই পুরস্কার জেতা আমার জন্য সম্মানের। সতীর্থদের ছাড়া এখানে থাকতে পারতাম না আমি। দীর্ঘদিন ধরে  যে স্বপ্নটি দেখেছি, সেটা অবশেষে পূরণ করতে পেরেছি। খুব কম মানুষই এটা পূরণ করতে পারে এবং স্বপ্নটা পূরণ করতে পেরে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করছি।

সেই সঙ্গে পরিবার ও আর্জেন্টিনার মানুষকেও ভুলেননি তিনি। মেসি বলেন, সবশেষ এই সুন্দর মুহূর্তটির জন্য অপেক্ষা করে থাকা পরিবার এবং আর্জেন্টিনার মানুষদের ধন্যবাদ জানাতেই চাই এবং এই স্মৃতি আজীবন মনে থাকবে আমার।

উল্লেখ্য, ২০০৯ সালে সর্বপ্রথম ফিফা দ্য বেস্ট পুরস্কার জেতেন মেসি। সেই ধারাবাহিকতা তার থাকে পরবর্তী তিন বছর। দুই মৌসুম বিরতি দিয়ে ২০১৫-তে আবারও তিনি বর্ষসেরার পুরস্কার জেতেন। ফিফা দ্য বেস্ট এবং ব্যালন ডি’অর আলাদা হওয়ার পর ২০১৯ সালের ষষ্ঠবারের মতো এ পুরস্কার জিতেছিলেন মেসি।

Print Friendly and PDF