চট্টগ্রাম, মঙ্গলবার, ৫ মার্চ ২০২৪ , ২১শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সেভিয়াকে বড় ব্যবধানে হারালো বার্সেলোনা

প্রকাশ: ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ ১১:০৭ : পূর্বাহ্ণ

লা লিগায় সেভিয়াকে ৩-০ গোলের বড় ব্যবধানে হারাল বার্সেলোনা। প্রথমার্ধে সবই করেছিল বার্সেলোনা, ঘাটতি ছিল কেবল গোলের। দ্বিতীয়ার্ধে এলো সেটাও। আক্রমণের তোড়ে সেভিয়াকে ভাসিয়ে জিতল অনায়াসে। টানা পঞ্চম জয়ে লা লিগায় শীর্ষস্থান আরও সুসংহত করল তারা।

কাম্প নউয়ে রোববার রাতে জর্দি আলবা দলকে এগিয়ে নেওয়ার পর ব্যবধান বাড়ান গাভি। তৃতীয় গোলটি করেন রাফিনিয়া।

ঘরের মাঠে ম্যাচের শুরুতেই একটা ধাক্কা খায় বার্সেলোনা। প্রতিপক্ষের ট্যাকলে পায়ে চোট পেয়ে পঞ্চম মিনিটে মাঠ ছাড়েন সের্হিও বুসকেতস।

প্রথম কিছুক্ষণ খেলা চলে সমানে-সমানে। ধীরে ধীরে নিয়ন্ত্রণ নেয় বার্সেলোনা। প্রথমার্ধের লম্বা একটা সময় নিজেদের অর্ধ থেকেই বের হতে পারেনি সেভিয়া।

ষোড়শ মিনিটে প্রথম ভালো সুযোগ পায় বার্সেলোনা। রবের্ত লেভানদোভস্কির শট দারুণ দক্ষতায় কর্নারের বিনিময়ে ফিরিয়ে দেন সেভিয়া গোলরক্ষক ইয়াসিন বোনো। কর্নারে রোনাল্দ আরাউহোর চমৎকার হেড বেরিয়ে যায় পোস্ট ঘেঁষে।

২৬তম মিনিটে আবার সেভিয়ার ত্রাতা বোনো। ডি-বক্সের বাইরে থেকে বাঁ দিকের পোস্ট ঘেঁষে লেভানদোভস্কির বুলেট গতির শট যাচ্ছিল জালের দিকে। ঝাঁপিয়ে পড়ে কোনোমতে বাঁচান মরক্কান গোলরক্ষক।

৪১তম মিনিটে আত্মঘাতী গোল প্রায় দিয়েই ফেলেছিলেন নেমানিয়া গোদেল। সেভিয়ার এই সার্বিয়ান মিডফিল্ডারের হেড বেরিয়ে যায় পোস্ট ঘেঁষে।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকে একই রকম আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে বার্সেলোনা। তবে পুরোপুরি রক্ষণাত্মক হয়ে পড়া সেভিয়া কোনো না কোনো ভাবে ঠেকিয়ে দিতে থাকে আক্রমণগুলো।

তাদের রক্ষণ ভেঙে ৫৮তম মিনিটে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরা। গাভির বাড়ানো বল ধরে রাফিনিয়া ডি-বক্সে খুঁজে নেন ফঁক কেসিয়েকে। প্রথমার্ধে বুসকেতসের বদলি নামা এই মিডফিল্ডার বল বাড়ান দ্রুত গতিতে গোলমুখে ছুটে যাওয়া জর্দি আলবাকে। অভিজ্ঞ স্প্যানিশ ডিফেন্ডার দূরের পোস্ট দিয়ে চমৎকার ফিনিশিংয়ে সারেন বাকিটা।

৭০তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন গাভি। এই গোলে দারুণ অবদান খানিক আগে পা পিছলে পড়ে গিয়ে সুযোগ হাতছাড়া করা রাফিনিয়ার। প্রতি-আক্রমণে নিজেদের অর্ধ ধরে বাড়ানো বল ধরে এগিয়ে যান ব্রাজিলিয়ান উইঙ্গার। ডি-বক্সে সেভিয়ার কয়েক জন খেলোয়াড়ের মাঝ দিয়ে তিনি খুঁজে নেন গাভিকে। দূরের পোস্টে তরুণ এই স্প্যানিশ মিডফিল্ডার কাজে লাগান সহজতম সুযোগ।

৯ মিনিট পর স্কোর লাইন ৩-০ করেন রাফিনিয়া। দ্রুত গতিতে এগিয়ে গিয়ে উঁচু করে বাড়ানো বল ধরেই ক্রস করেন আলবা। গোল মুখে পা ছুঁয়ে বাকিটা সারেন রাফিনিয়া।

যোগ করা সময়ে লেভানদোভস্কির শট ঠেকিয়ে ব্যবধান আর বাড়তে দেননি বোনো।

২০ ম্যাচে ১৭ জয় ও দুই ড্রয়ে বার্সেলোনার পয়েন্ট ৫৩। সমান ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদের পয়েন্ট ৪৫। টানা দুই জয়ের পর হারের তেতো স্বাদ পেল সেভিয়া। ২০ ম্যাচে ২১ পয়েন্ট নিয়ে নিয়ে তারা আছে ১৬ নম্বরে।

Print Friendly and PDF