চট্টগ্রাম, বুধবার, ২২ মে ২০২৪ , ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

স্মার্ট জাতি গঠনে প্রযুক্তির বিকল্প নেই: পানিসম্পদ উপমন্ত্রী

প্রকাশ: ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ ২:৪৯ : অপরাহ্ণ

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম বলেছেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন বাস্তব। স্মার্ট বাংলাদেশ ও স্মার্ট জাতি গঠনই আমাদের পরবর্তী লক্ষ্য। স্মার্ট জাতি গড়ার লক্ষ্য পূরণে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের কোনো বিকল্প নেই। তরুণ প্রজন্মকে স্মার্ট বাংলাদেশের উপযোগী হিসেবে গড়ে উঠতে হবে।

শুক্রবার বিকালে রাজধানীর আইডিইবি’র হল রুমে শরীয়তপুর জেলা শিক্ষা ট্রাস্ট আয়োজিত কৃতি শিক্ষার্থীদের বৃত্তিপ্রদান অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর শিক্ষাক্ষেত্রে অভূতপূর্ব উন্নতি হয়েছে। শিক্ষার্থীদের হাতে এ বছর প্রায় ৩৫ কোটি বই তুলে দিয়ে বাংলাদেশ বিশ্বে অনন্য উদাহরণ সৃষ্টি করেছে। জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণ, ২০৩০ সালে মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন, রূপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়ন এবং চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় কাজ করে যাচ্ছে সরকার। ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য বর্তমানকে উজাড় করে দিতে হবে। ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে আমরা দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।

তিনি বলেন, বর্তমান প্রজন্মের শিক্ষার্থীরা হবে উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশের সুনাগরিক। শতভাগ শিক্ষার হার নিশ্চিত করতে সরকার এরই মধ্যে নানা প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে। স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে নৈতিক শিক্ষা দিয়ে নতুন প্রজন্মকে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে উপমন্ত্রী বলেন, তোমাদের সৌভাগ্য তোমরা বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার মতো রাষ্ট্রপ্রধান পেয়েছো। যিনি সততায় সেরা, মেধায় সেরা, যোগ্যতায় সেরা, দক্ষতায় সেরা। সেরাদের সেরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি একমাত্র রাজনীতিবিদ, যিনি পরবর্তী নির্বাচন নয়, পরবর্তী প্রজন্ম নিয়ে ভাবেন। আগামী প্রজন্মের বিশ্বমানের উন্নত সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করে চলছেন শেখ হাসিনা।

এনামুল হক শামীম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাগ্যের সঙ্গে শরীয়তপুরের মানুষের ভাগ্য জড়িত। ১৯৯৬ সালের আগ পর্যন্ত শরীয়তপুরে মাত্র সোয়া কিলোমিটার রাস্তা পাকা ছিল। আর তিনি ক্ষমতায় পর ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। এরপর আওয়ামী লীগ টানা তিনবার ক্ষমতা আসায় শরীয়তপুরে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। তাই বঙ্গবন্ধু, শেখ হাসিনা ও নৌকার প্রশ্নে শরীয়তপুরের মানুষ কখনো আপস করে না।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার বদৌলতে শরীয়তপুর বিদ্যুতে স্বয়ংসম্পূর্ণ। পদ্মা নদীর তলদেশ দিয়ে সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমেও দুর্গম চরেও বিদ্যুায়তন হয়েছে। শরীয়তপুরে শেখ রাসেল সেনানিবাস হয়েছে, চার লেনের কাজ এগিয়ে যাচ্ছে, রেললাইন হচ্ছে। শরীয়তপুরে শেখ হাসিনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন হয়েছে। শরীয়তপুরে সব স্কুল এমপিওভুক্ত হয়েছে। চাদঁপুর-শরীয়তপুর মেঘনা নদীতেও মেঘনা সেতু নির্মাণের জন্য সমীক্ষার কাজ চলছে। শরীয়তপুরে এখন আর নদীভাঙন নেই। শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আছেন বলেই শরীয়তপুর সবদিক থেকেই এগিয়ে যাচ্ছে। তাই আগামী নির্বাচনেও আপনাদের ভোটে শেখ হাসিনা পঞ্চমবারের মতো ক্ষমতায় আসবেন।

Print Friendly and PDF