চট্টগ্রাম, রোববার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩ , ১৫ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ইউক্রেনকে ৬০০ সালফার ক্ষেপণাস্ত্র দেবে যুক্তরাজ্য

প্রকাশ: ২০ জানুয়ারি, ২০২৩ ৩:১৮ : অপরাহ্ণ

যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেনকে রাশিয়ার বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধে সহায়তা করার জন্য যুক্তরাজ্য ৬০০ সালফার ক্ষেপণাস্ত্র পাঠাবে। ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেন ওয়ালেস বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) এ কথা জানান। খবর এএফপির।

ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী এস্তোনিয়ার তাপা সামরিক ঘাঁটিতে সাংবাদিকদের বলেন, আমরা ঘটনাস্থলে আরও ৬০০ সালফার ক্ষেপণাস্ত্র পাঠাতে যাচ্ছি, যা ইউক্রেনকে যুদ্ধক্ষেত্রে আধিপত্য বিস্তারে অবিশ্বাস্যভাবে গুরুত্বপূর্ণ হবে।

এদিকে রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য সামরিক সহায়তার অংশ হিসেবে ইউক্রেনকে অত্যাধুনিক চ্যালেঞ্জার-২ ট্যাংক পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছে ব্রিটেন। এই ট্যাংক দিয়ে রুশ বাহিনীকে পিছু হটাতে সক্ষম হবে জেলেনস্কি বাহিনী, এমনটাই আশা সুনাক প্রশাসনের। তবে কিয়েভকে চ্যালেঞ্জার-২ নামের এই ট্যাংক সরবরাহ করা হলে তা পুড়িয়ে ফেলার হুঁশিয়ারি দিয়েছে ক্রেমলিন। বিশ্লেষকরা বলছেন, এসবের মধ্য দিয়ে চলমান সংঘাতে আরও সুস্পষ্টভাবে জড়িয়ে গেছে ব্রিটেন।

ইউক্রেনে চলমান রুশ সামরিক অভিযানের মধ্যেই কিয়েভের ডাকে সাড়া দিয়ে দেশটিতে অত্যাধুনিক রণসরঞ্জাম দিতে তৎপরতা শুরু করেছে পশ্চিমা ও ইউরোপীয় মিত্ররা। এরই অংশ হিসেবে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক ইউক্রেনকে সামরিক সহযোগিতা হিসেবে ১৪টি চ্যালেঞ্জার-২ ট্যাংকসহ আরও কিছু গোলাবারুদ পাঠানোর ঘোষণা দিয়েছেন।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি ও ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাকের ফোনালাপের পর এ বিষয়টি নিশ্চিত করে যুক্তরাজ্য। ঋষি সুনাকের কার্যালয় থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, সামনের যে কোনো সপ্তাহে ৩০টি স্বয়ংক্রিয় এএস-৯০ বন্দুকসহ ১৪টি চ্যালেঞ্জার-২ ট্যাংকের একটি স্কোয়াড্রন পাঠানোর পরিকল্পনা করছে ব্রিটেন। একইসঙ্গে ইউক্রেনের সেনাবাহিনীর সদস্যদের ট্যাংকের পাশাপাশি বন্দুক ব্যবহার করার প্রশিক্ষণ দেবে ব্রিটেনের সেনারা। ঋষি সুনাকের বিশ্বাস, ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর প্রধান যুদ্ধট্যাংক ইউক্রেনীয় বাহিনীকে রাশিয়ার সেনাদের পিছু হটাতে সাহায্য করবে।

এ ছাড়া ইউক্রেনে ব্রিটেনের ট্যাংক পাঠানোর ঘোষণায় বেজায় চটেছে রাশিয়া। যুক্তরাজ্যের ঘোষণার পরপরই লন্ডনে রুশ দূতাবাস থেকে এক বিবৃতিতে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে। যেখানে বলা হয়, ইউক্রেনে ট্যাংক পাঠানোর মধ্য দিয়ে চলমান সংঘাতে আরও সুস্পষ্ট জড়িয়ে গেছে ব্রিটেন। আর এ কারণে যুদ্ধের তীব্রতা বাড়লে হতাহতও বাড়বে। সে দায় ব্রিটেনকেও নিতে হবে।

দূতাবাসের বরাতে রুশ বার্তা সংস্থা তাস জানায়, চ্যালেঞ্জার-২ ট্যাংক ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনীকে যুদ্ধক্ষেত্রে খুব একটা বেশি সুবিধা দিতে পারবে না। এটা যুদ্ধের মোড়ও ঘোরাবে না। বরং রুশ আর্টিলারির জন্য একটি বড় লক্ষ্যে পরিণত হবে।

 

Print Friendly and PDF