চট্টগ্রাম, সোমবার, ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ , ২৩শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিমানের সিটের হাতল ভাঙা, এলইডি স্ক্রিন খুলে ফেলার চেষ্টা

প্রকাশ: ১৮ জানুয়ারি, ২০২৩ ১১:৩৭ : পূর্বাহ্ণ

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের অত্যাধুনিক বোয়িং ৭৮৭-৯ ড্রিমলাইনারের কয়েকটি সিটের হাতল ভেঙে ফেলা হয়েছে। আরেকটি সিটের সামনে থাকা এলসিডি মনিটর উপড়ে তুলে ফেলা হয়েছে। কোনো যাত্রীই এ কাজ করেছেন বলে মনে করছে বিমান কর্তৃপক্ষ।

আসনের হাতল ভাঙা ও মনিটর খুলে ফেলার এ ঘটনাটি ঘটে চলতি সপ্তাহে। টরন্টোতে একটি রুটিন চেক-আপের সময় ধরা পড়ে এ কাণ্ড। চেকআপের সময় দেখা যায়, বিমানের বেশ কয়েকটি আসনের বেহাল দশা। একটি আসনের দুই পাশের হাতলই ভেঙে ফেলা হয়েছে।

এছাড়া ৪১ সি নম্বর সিটের এলইডি মনিটর খুলে ভেঙে ফেলা হয়েছে। মেঝেতে ফেলে রাখা হয়েছে ময়লা-আবর্জনা, ব্যবহৃত কাটা চামচ, পানির খালি বোতল। বেশ কয়েকটি সিটের হাতল আংশিক ভেঙে ফেলা হয়েছে। কোনোমতে টেপ দিয়ে জোড়া লাগানো হয়েছে হাতলের ক্ষতিগ্রস্ত অংশ।

কে বা কারা এসব করেছে, উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এটা করা হয়েছে কি না তা এখনও জানতে পারেনি বিমান।

বোয়িং ৭৮৭-৯ ড্রিমলাইনার ঢাকা থেকে কানাডার টরন্টো রুটে চলাচল করে। মাঝপথে ১ ঘণ্টা ১৫ মিনিট তেল নেওয়ার জন্য তুরস্কের ইস্তাম্বুলে যাত্রাবিরতি করে। প্রায় ২১ ঘণ্টার এই যাত্রাপথে ফ্লাইটে থাকেন প্রায় ৩০০ জনের মতো।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে বর্তমানে মোট ২১টি এয়ারক্রাফট রয়েছে। অত্যাধুনিক বোয়িং ৭৮৭-৯ ড্রিমলাইনারের যে বিমানটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সেটিতে মোট ২৯৮টি আসন রয়েছে। তার মধ্যে বিজনেস ক্লাসে ৩০টি, ইকোনমি ক্লাসে ২৪৭টি এবং প্রিমিয়াম ইকোনমি ক্লাসে ২১টি আসন রয়েছে। এটি টানা প্রায় ১৪ হাজার কিলোমিটার উড়তে পারে।

Print Friendly and PDF