চট্টগ্রাম, সোমবার, ২৮ নভেম্বর ২০২২ , ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ভারত মহাসাগরে চীনা গুপ্তচর জাহাজ

প্রকাশ: ৫ নভেম্বর, ২০২২ ২:১০ : অপরাহ্ণ

ভারতের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার মধ্যেই ভারত মহাসাগরের জলে ঢুকে পড়েছে চীনা গুপ্তচর জাহাজ ‘ইউয়ান ওয়াং-৬’। ইন্দোনেশিয়ার বালি উপকূল থেকে ভারত মহাসাগরে ঢুকে পড়ে। ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

প্রতিবেদনে বলা হয়, জাহাজটির গতিবিধির উপর সতর্ক নজরদারি চালাচ্ছে ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

বঙ্গোপসাগরে ভারতের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচির অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে চীনের জাহাজ ভারত মহাসাগরে ঢুকেছে বলে ধারণা করছে নয়াদিল্লি। ‘ইউয়ান ওয়াং-৬’ এর মূল দায়িত্ব ভারতীয় প্রতিরক্ষা গবেষণা ও উন্নয়ন সংস্থা ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশনের (ডিআরডিও) ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণের উপর নজরদারি করা।

 

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, তারা আগেই বিষয়টি সম্পর্কে জেনেছিলেন। কয়েক দিন ধরেই এই জাহাজের গতিবিধি নজরে রাখা হচ্ছে।

এর আগে আগস্ট মাসের শেষের দিকে চীনের নজরদারি জাহাজ ‘ইউয়ান ওয়াং-৫’  শ্রীলঙ্কার হাম্বানটোটা বন্দরে ভিড়েছিল। সে সময় শ্রীলঙ্কার কাছে জাহাজটিকে কিছু দিনের জন্য হাম্বানটোটা বন্দরে অবস্থান করার অনুমতি চায়। ভারতের তীব্র আপত্তি সত্বেও জাহাজটিকে বন্দরে ভেড়ার অনুমতি দেয় শ্রীলঙ্কা।

চীনা জাহাজটি এমন সময় ভারত মহাসাগরে ভিড়লো যখন ওড়িশা উপকূলে সফল ভাবে ‘ফেজ-২’ ব্যালিস্টিক মিসাইল ডিফেন্স (বিএমডি) কর্মসূচির অন্তর্গত ইন্টারসেপ্টর ‘এডি-১’ ক্ষেপণাস্ত্রের প্রথম উৎক্ষেপণ পরীক্ষা চালালো দেশটি। এই ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধী ব্যবস্থা ভারতের আকাশ প্রতিরক্ষাকে অনেক দিক দিয়ে শক্তিশালী করবে বলে মনে করছেন প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা।

এই পরীক্ষার পরপরই ‘ইউয়ান ওয়াং-৬’ এর আগমন তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে। আগামী ১০ বা ১১ নভেম্বর ওড়িশা উপকূলের কাছে আব্দুল কালাম দ্বীপ থেকে দুই হাজার ২০০ কিলোমিটার পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ করতে চলেছে ভারত। তার গতিবিধি নজরদারি করাই ‘ইউয়ান ওয়াং-৬’ এর এ বারের মিশন বলে মনে করছে ভারত।

Print Friendly and PDF