চট্টগ্রাম, শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২ , ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ভোলার টবগী-১ থেকে দৈনিক মিলবে ২০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস: প্রতিমন্ত্রী

প্রকাশ: ৩ নভেম্বর, ২০২২ ৪:১৩ : অপরাহ্ণ

ভোলার শাহবাজপুর গ্যাসক্ষেত্রের টবগী-১ থেকে দৈনিক ২০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস (এমএমসিএফডি) পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

বৃহস্পতিবার (৩ নভেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ  কথা বলেন তিনি।

নসরুল হামিদ বলেন, শাহবাজপুর গ্যাসফিল্ড হতে টবগী-১ কূপ খনন এলাকাটি আনুমানিক ৩ দশমিক ১৭ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। ভূতাত্তিক তত্ত্ব অনুযায়ী অনুসন্ধান কূপের গ্যাসের সম্ভাব্য মজুদ প্রায় ২৩৯ বিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস। দৈনিক গড় ২০ মিলিয়ন ঘনফুট হারে গ্যাস উৎপাদন বিবেচনায় কূপ থেকে ৩০ থেকে ৩১ বছর গ্যাস উৎপাদন করা সম্ভব। আমরা সেখান থেকে প্রতিদিন ২০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস উৎপাদন করব।

তিনি আরও জানান, গ্রাহক পর্যায়ে এর মূল্য যদি আমরা ১১ টাকা হারে ধরি তবে ৮ হাজার কোটি টাকার মতো দাঁড়াবে। যদি আমরা এলএনজির মূল্য হিসেবে ধরি তবে এর দাম অনেক বেশি। আগামী সপ্তাহের মধ্যে কূপটি দ্রুত উৎপাদন সরবরাহের দিকে যাবে। আমাদের এই গ্যাস পেতে প্রায় দেড় থেকে দুই বছর লাগবে। কারণ সেখানে প্রসেসিংয়ের কিছু বিষয় আছে।

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা আশা করছি পর্যয়ক্রমে আরও দুটি কূপ ভোলাতে ইলিশা-১ এবং ভোলা নর্থ- ২ এখানকার কাজও আগামী ২০২৩ সালের জুন মাস নাগাদ শেষ করতে পারব। সেখান থেকে দৈনিক প্রায় ৫৫ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস মিলবে। এরই মধ্যে বাপেক্সসহ আরও দুটি কোম্পানি সিলেট গ্যাস ফিল্ডসহ আগামী ২০২৫ সালের মধ্যে ৪৬টি কূপ খনন করবে। আমরা আশা করছি এই ৪৬টি কূপের মাধ্যমে প্রায় ৬০০ থেকে ৭০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস উত্তোলন সম্ভব হবে।

লোডশেডিং প্রসঙ্গে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, আপনারা দেখছেন লোডশেডিং অনেকটা কমেছে। আমরা আশা করছি জানুয়ারিতে আরও উন্নতির দিকে যাবে।

এসময় পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান নাজমুল আহসান, বাপেক্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহম্মদ আলীসহ শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly and PDF