চট্টগ্রাম, শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২ , ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ফের ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন নেতানিয়াহু!

প্রকাশ: ২ নভেম্বর, ২০২২ ৪:০৪ : অপরাহ্ণ

ইসরায়েলের সাধারন নির্বাচনে জয়ের পথে আছেন দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত নির্বাচনের বুথ ফেরত জরিপে এমনটাই ইঙ্গিত করছে।

বুধবার (২ নভেম্বর) এক প্রতিবেদনে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানায়, নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক ফলাফল ঘোষণার আগে এক জরিপে দেখা গেছে যে, বিরোধী ইয়েমিনা পার্টির নাফতালি বেনেটের তুলনায় নেতানিয়াহুর ডানপন্থী দল এগিয়ে আছে।

রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতার মধ্যে থাকা দেশটিতে গত চার বছরের মধ্যে এ নিয়ে পঞ্চমবারের মতো সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হল।

টানা ১২ বছর ক্ষমতায় থাকার পর গত বছর নির্বাচনে হেরে যান দুর্নীতির অভিযোগের মুখে থাকা নেতানিয়াহু। ফলে এবারের নির্বাচনকে নেতানিয়াহুর প্রত্যাবর্তনের পক্ষে-বিপক্ষে ভোট হিসেবে দেখা হয়েছিল।

ইসরায়েল টেলিভিশনের জরিপ বলছে, নেতানিয়াহুর ডানপন্থী দল ১২০টি আসনের নেসেটে ৬১ বা ৬২টি আসন পাবে।

নেতানিয়াহুর প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ইয়ার লাপিদ অবশ্য কোনও ধরনের পূর্বাভাসে কান না দিয়ে চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে আগ্রহী।

গত বছরের জুনে ইসরায়েলের পার্লামেন্ট নেসেটে নতুন জোট সরকার গঠন নিয়ে বিতর্কের পর ভোট হয়। নতুন জোট সরকারের পক্ষে পড়ে ৬০ ভোট। বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর পক্ষে পড়ে ৫৯ ভোট। পরে ইয়ার লাপিদের মধ্যপন্থী দল ইয়েস আতিদের সঙ্গে জোট করে সরকার গঠন করে ইয়েমিনা পার্টি।

কিন্তু সম্প্রতি দেশটির বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেট ও ইয়ার লাপিদের জোটে সম্প্রতি ফাটল দেখা দেয়। তাই এই নির্বাচনের আয়োজন করা হয়।

সম্ভাব্য নতুন প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু ইসরায়েলের সবচেয়ে বিতর্কিত রাজনৈতিক ব্যক্তিদের একজন। কেন্দ্রে অনেকেই তাকে অপছন্দ করেন। তবে লিকুদ পার্টির তৃণমূল সমর্থকদের কাছে তার জনপ্রিয়তা রয়েছে।

ঘুষ, জালিয়াতি ও বিশ্বাস ভঙ্গের অভিযোগে নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে আদালতে মামলা চলছে। তবে এসব অভিযোগ তিনি জোরালোভাবে অস্বীকার করেছেন। তার সম্ভাব্য অংশীদাররা বলছেন, তারা আইনটি সংস্কার করবে, যা তার বিরুদ্ধে চলা এসব মামলা স্থগিত করবে।

Print Friendly and PDF