চট্টগ্রাম, শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২ , ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নিউজিল্যান্ডের চ্যাথাম দ্বীপে আটকা পড়ে ৫০০ পাইলট তিমির মৃত্যু

প্রকাশ: ১২ অক্টোবর, ২০২২ ১২:৫৩ : অপরাহ্ণ

নিউজিল্যান্ডের প্রত্যন্ত চ্যাথাম দ্বীপে আটকা পড়ে মৃত্যু হয়েছে প্রায় ৫০০ ডলফিনের। তবে এই অঞ্চলটিতে হাঙ্গরের আধিক্য বেশি হওয়ায় মৃত ডলফিনগুলোকে উদ্ধার অভিযান বাতিল করা হয়।

ডিপার্টমেন্ট অফ কনজারভেশন প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে, হাঙরের ভরা ওই সমুদ্রে কোনোভাবে পথ হারিয়েছে বা আটকে পড়েছিল বড় আকারের সামুদ্রিক ডলফিনগুলো। ফলে গণমৃত্যুর ঘটনা ঘটে থাকতে পারে।

মানুষ ও তিমি উভয়ের জন্য হাঙ্গরের আক্রমণের ঝুঁকির কারণে আটকে পড়া ডলফিনগুলো পুনরায় ভেসে যাওয়া সম্ভব হয় না। বেঁচে থাকা ডলফিনগুলো আরও দুর্ভোগ এড়াতে আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়।

নিউজিল্যান্ড সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, শুক্রবার, চ্যাথাম দ্বীপে ২৫০টি পাইলট তিমি সৈকতে ভেসে আসে। এ ঘটনার তিন দিন পর ফের পিট দ্বীপে আরও ২৪০টি তিমি পাওয়া যায়। দ্বীপগুলো নিউজিল্যান্ডের মূল ভূখণ্ড থেকে অনেক দূরে হওয়ায় উদ্ধার অভিযানকে অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে। মৃতদেহগুলিকে প্রাকৃতিকভাবে পচে যাওয়ার জন্য সাইটে রেখে দেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, ১৯১৮ সালে আনুমানিক ১ হাজার তিমি মারা যায় চ্যাথাম দ্বীপপুঞ্জে। এরপর ২০১৭ সালে ৭০০টি পাইলট তিমির মৃত্যু দেখে এই দ্বীপ। সরকারী পরিসংখ্যান অনুসারে নিউজিল্যান্ডে বছরে প্রায় ৩০০টি তিমি মারা যায়। গত মাসে, অস্ট্রেলিয়ার প্রত্যন্ত পশ্চিমাঞ্চলীয় তাসমানিয়ার একটি সৈকতে প্রায় ২০০ পাইলট তিমি মারা যায়।

Print Friendly and PDF