চট্টগ্রাম, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২ , ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

হানিমুনে গিয়ে স্বামীকে মারধর করে পালানো নববধূ প্রেমিকসহ গ্রেপ্তার

প্রকাশ: ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ১১:৩৩ : পূর্বাহ্ণ

হানিমুনে গিয়ে স্বামীকে মারধর করে পালানো নববধূ প্রেমিকসহ গ্রেপ্তার

পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় হানিমুনে গিয়ে স্বামীকে মারধর করে পালানো নববধূকে প্রেমিকসহ গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে তাদের বরগুনা জেলার তালতলী থেকে গ্রেপ্তার করে তালতলী থানা পুলিশ।

গ্রেপ্তার নোমান (২৪) বরগুনার তালতলী উপজেলার ছোটবগী ইউনিয়নের মৌপাড়া এলাকার আলাল হাওলাদারের ছেলে। মারধরের স্বীকার যুবকের নাম মনিরুল ইসলাম। তার স্ত্রীর নাম নুরে জান্নাত।

তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু বলেন, কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে ঘুরতে গিয়ে স্বামীকে মারধর করে প্রেমিকের সঙ্গে পালিয়ে যাওয়া নববধূ তালতলীতে আত্মগোপনে রয়েছেন, এমন খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। সেখানে তার প্রেমিকসহ গ্রেপ্তার করি। পরে মহিপুর থানা পুলিশের কাছ হস্তান্তর করা হয়।

মহিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) হাফিজুর রহমান জানান, ঘটনার পরের দিনই ভুক্তভোগী মনিরুলের বাবা বাদী হয়ে মহিপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। তারই পরিপ্রেক্ষিতে আমরা তালতলি থানা পুলিশের সহযোগিতায় তাদের গ্রেপ্তার করেছি।

এর আগে মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ১১টার দিকে কুয়াকাটায় হানিমুনে গিয়ে সৈকতের জিরো পয়েন্ট-সংলগ্ন ফ্রাই মার্কেটের পাশে মনিরুলকে মারধর করে হামলাকারীদের সঙ্গে পালিয়ে যান তার স্ত্রী।

ভুক্তভোগী মনিরুল ইসলাম জানান, তিনি দীর্ঘদিন সিঙ্গাপুর প্রবাসী ছিলেন। দেশে আসার পরে গত শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) পারিবারিকভাবে বরগুনার ধলুয়া ইউনিয়নের হারুন অর রশিদের মেয়ে নুরে জান্নাতকে বিয়ে করেন। পরে মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে তারা হানিমুনে এসে কুয়াকাটার আবাসিক হোটেল তাজে ওঠেন। রাতে তার অনিচ্ছা সত্ত্বেও স্ত্রী তাকে সৈকতের ফ্রাই মার্কেট পেরিয়ে অন্ধকারে নিয়ে যান। এ সময় চার-পাঁচজন দুর্বৃত্ত তার ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। আমি আমার স্ত্রীকে আঁকড়ে ধরলেও সে আমাকে বাঁচানোর চেষ্টা না করে বরং হামলাকারীদের সঙ্গে পালিয়ে যায়।

Print Friendly and PDF