চট্টগ্রাম, সোমবার, ৩ অক্টোবর ২০২২ , ১৮ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কবরস্থান থেকে ১২ কঙ্কাল চুরি, বাদ যায়নি বীর মুক্তিযোদ্ধার কঙ্কালও

প্রকাশ: ৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ৫:১৩ : অপরাহ্ণ

পঞ্চগড় জেলার বোদা উপজেলা সদরের ঝলঝলি কবরস্থান থেকে কঙ্কাল চুরির ঘটনা ঘটেছে।

সোমবার (৫ সেপ্টেম্বর) গভীর রাতে দুর্বৃত্তরা বোদা পৌরসভার সাতখামার ঝলঝলি কবরস্থানের ১২টি কবরের কঙ্কাল নিয়ে যায়। মঙ্গলবার সকালে স্থানীয় সামসুল হক নামে এক ব্যক্তি কবরস্থানের পাশ দিয়ে হেটে যাওয়ার সময় কবর স্থানে কিছু কুকুর দেখতে পায়। কবরস্থানে ভেতরে এগিয়ে কবরের মাটি ও বাঁশ অন্যত্র দেখতে পান। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকার উৎসুক লোকজন ভিড় জমায়। খবর পেয়ে কবরস্থানে আত্মীয় স্বজনেরা তাদের মৃত স্বজনদের কবর দেখতে থাকে। পরে দেখা যায় মুক্তিযোদ্ধা সোলেমান আলী, শিক্ষিকা তাহেরা খাতুন, তোফাজ্জাল হোসেন, হকিকুল, রমজানসহ ১২টি কবরের কঙ্কাল চুরি করে নিয়ে যায়। লাইট মেরে কবরের ভেতরে কোনও কঙ্কাল দেখতে পাননি স্থানীয়রা। খোলা কবর গুলোতে মৃতের স্বজনেরা মাটি দেন। রাতে কঙ্কাল চোরেরা তাদের ব্যবহৃত পড়নের কাপড় কবরের পাশে ফেলে যান।

বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলেমান আলীর ছেলে রনি ও সোহেল জানান, দেশের জন্য আমার বাবা জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করেন। তার কবর মৃত্যুর পরেও সুরক্ষিত নয়। আমরা এর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

বোদা পাথরাজ সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যাপক সফিকুল ইসলাম জানান, আমার ভাবীর মরদেহটি নিয়ে যায়। তবে কবরস্থানগুলো সুরক্ষার জন্য রাষ্ট্রীয় ও স্থানীয় ভাবে পাহারার দরকার। প্রয়োজনে চতুর্দিকে বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণ করা দরকার।

আটোয়ারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুশফিকুল আলম হালিম সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। স্থানীয়দের আটোয়ারি থানা পুলিশের কাছে সাধারণ ডায়েরি করার পরামর্শ দিয়েছেন। উপজেলা প্রশাসন বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নিবেন বলে তিনি জানান।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের এ নিয়ে তৃতীয় বারের মতো বোদা উপজেলায় তিনটি কবরস্থানে মরদেহ চুরির ঘটনা ঘটেছে। এর আগে চন্দনবাড়ি ও ভাসাইনগর কবরস্থানে ১৮টি কঙ্কাল চুরি হয়েছিল।

Print Friendly and PDF