চট্টগ্রাম, রোববার, ২ অক্টোবর ২০২২ , ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

চীনে ভয়াবহ খরা ও বিদ্যুৎ সংকট, উদ্বেগ

প্রকাশ: ২৯ আগস্ট, ২০২২ ৪:৪১ : অপরাহ্ণ

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব খুব ভালোভাবেই বুঝতে পারছে বিশ্বের অন্যতম পরাশক্তি চীন। গত দুই সপ্তাহ ধরে সেখানে ভয়াবহ বিদ্যুৎ সংকট চলছিল।

ভয়াবহ তাপপ্রবাহ ও খরার জেরে চীনের সেচুয়ানে তৈরি হয় ভয়াবহ বিদ্যুৎ সংকট। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে এই সংকট চলে। রোববার তাপমাত্রা কমে দাঁড়ায় ৪০ ডিগ্রি। তারপর পরিস্থিতি কিছুটা ভালো হয়েছে। খবর ডয়চে ভেলের

গত ছয় দশকের মধ্যে এই অঞ্চলে সবচেয়ে তীব্র তাপপ্রবাহ চলেছে। গরম থেকে বাঁচতে মানুষ প্রবলভাবে এসি চালিয়েছেন। এর ফলে বিদ্যুৎ সংকট দেখা দেয়। রোববার তাপমাত্রা কিছুটা কমলেও ভয়ংকর খরা পরিস্থিতির এখনো উন্নতি হয়নি। তাই বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিদ্যুৎ-সংকট এখনো কাটেনি।

বিদ্যুৎ-সংকটের সবচেয়ে বড় প্রভাব পড়েছে শিল্প কারখানায়। স্বাভাবিক সময়ে সেচুয়ানের জলবিদ্যুৎ চীনকে বাঁচিয়ে রাখে। দেশের মোট জলবিদ্যুৎ উৎপাদনের ৩০ শতাংশ এখানে উৎপাদন হয়।

কিন্তু সেচুয়ানে বিদ্যুৎ সংকটের ফলে অন্য অঞ্চল থেকে বিদ্যুৎ এখানে আনতে হয়। এর ফলে টয়োটা, ফক্সকনসহ একাধিক সংস্থা বন্ধ রাখতে হয়। এখন প্রথমে ছোট ও মাঝারি সংস্থাকে বিদ্যুৎ দেয়া হয়েছে। তারপর বড় সংস্থাকে দেয়া হচ্ছে।

সেচুয়ানের বিদ্যুৎ সরবরাহ অনেকটাই নির্ভর করে জলবিদ্যুতের উপর। তাই খরার প্রভাব এখানে ভালোভাবেই পড়ছে। তার প্রভাব পড়ছে অর্থনীতির ওপরেও। করোনা ও ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসনের প্রভাবও পড়েছে।

সবচেয়ে বড় কথা, এই খরার প্রভাব চীনের কৃষি উৎপাদনের উপরেও পড়বে। ফলে বেশ চিন্তায় পড়েছে চীনা কর্তৃপক্ষ।

Print Friendly and PDF