চট্টগ্রাম, রোববার, ২ অক্টোবর ২০২২ , ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মহানবী (সা.) বিতর্কে ফের গ্রেপ্তার বিজেপির টি রাজা সিং

প্রকাশ: ২৬ আগস্ট, ২০২২ ৪:১২ : অপরাহ্ণ

মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-কে নিয়ে অবমাননাকর ভিডিও পোস্ট করে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন ভারতের তেলাঙ্গানা রাজ্যের বিজেপি দলীয় বিধায়ক টি. রাজা সিং। এই মামলায় তিনি জামিনে বেরিয়ে এলেও তাকে আবারও গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও ‘সাম্প্রদায়িক পরিবেশ’ বিষয়ে নতুন একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন। এর কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তাকে কঠোর প্রিভেন্টিভ ডিটেনশন অ্যাক্টের (পিডিএ) অধীনে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এর কয়েক ঘণ্টা আগে যে ভিডিও তিনি শেয়ার করেছেন তাতে টি. রাজা সিং বলেন, তেলাঙ্গানা রাজ্য পুলিশ (হায়দরাবাদের এমপি) আসাদুদ্দিন ওয়েইসির হাতের পুতুল হয়ে গেছে।

এতে তিনি আরও বলেন, এআইএমআইএম প্রধান ওয়েইসির সমর্থকদেরকে ইটপাথর ছুড়তে স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে কোনো এফআইআর হয়নি। কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি।

এতে তিনি আসাদুদ্দিনের সমর্থকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলেন যে, তারা উপাসনালয়কে টার্গেট করেছে। রাজা সিং এর আগে মহানবী (সা.)-কে নিয়ে যে মন্তব্য করেছিলেন, তার প্রতিবাদ প্রসঙ্গে তিনি এসব কথা বলেন। মহানবী (সা.)-কে নিয়ে কটূক্তি করার কারণে তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ বিক্ষোভ হয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার বিজেপি থেকে তাকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। সাসপেন্ড হওয়ার পর টি. রাজা সিং বলেন, আমার দলের কাছে ব্যাখ্যা দেবো। বলবো, আমি ধর্মকে টার্গেট করিনি। আমি ব্যক্তিবিশেষকে টার্গেট করেছি। তাকে গ্রেপ্তারের পর বিজেপি বলেছে, রাজা সিংয়ের দৃষ্টিভঙ্গি দলীয় নয়। এ জবাবে তিনি বলেন, আমি আদালতে আইনি লড়াই করবো। কিন্তু বর্তমানে তিনি চারলাপল্লীতে সেন্ট্রাল জেলে আটক আছেন।

‘তেলাঙ্গানার পরিবেশ কেন আজ বিপর্যস্ত’- এমন কথা বলে তিনি এর জন্য দায়ী করেছেন মুখ্যমন্ত্রী কে. চন্দ্রশেখর রাওয়ের ছেলে মিউনিসিপ্যাল ডেভেলপমেন্ট মন্ত্রী কেটি রমা রাও (কেটিআর) এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মেহমুদ আলি’কে। তি

তিনি বলেন, কেটিআর একজন নাস্তিক। তিনি কোনো ধর্ম বিশ্বাস করেন না। তার দল তেলাঙ্গানা রাষ্ট্র সমিতি আসাদুদ্দিনের এআইএমআইএমের সঙ্গে মুসলিম ভোট ব্যাংক নিয়ে গেম খেলছে।

আদালতের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও প্রিভেন্টিভ ডিটেনশন অ্যাক্টের অধীনে টি. রাজা সিংহে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। এই আইনে আটক ব্যক্তিকে পুলিশ এক বছর পর্যন্ত জেলে রাখতে পারে। এর আগে মুসলিমদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার আঘাত দেয়ার কারণে মঙ্গলবার গ্রেপ্তার করা হয় তাকে। পুলিশ তাকে নিরাপত্তা হেফাজতে নেয়ার আবেদন করলে আদালত তা প্রত্যাখ্যান করে জামিন দেয়। তবে তাকে শর্ত দেয়া হয়।

কিন্তু জামিনে বেরিয়ে সেই শর্ত ভঙ্গ করেন তিনি। বানান নতুন ভিডিও। তাতে বলেন, আপনাদের সামনে আসতে আমি ঝুঁকি নিলাম। আদালত আমাকে মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলতে বারণ করেছে। কিন্তু পরিস্থিতি এখন আমাকে এটা করতে বাধ্য করছে।

তিনি বলেন, তেলাঙ্গানায় যে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা এর কারণ সম্পর্কে আপনাদের কাছে বলতে দিন। এখানে একজন কমেডিয়ান আছেন। তার নাম মুনাওয়ার ফারুকি। তিন মাস আগে হায়দরাবাদে তার শো বাতিল হয়েছিল পুলিশের সমর্থনে। এই কমেডিয়ান পরে টুইটারে কেটিআরের সঙ্গে যোগাযোগ করে এবং তাকে আমন্ত্রণ জানায় কেটিআর। তাকে পুলিশি নিরাপত্তা দেয়। আর আমাকে গ্রেপ্তার করা হয়। চারজন আইপিএস কর্মকর্তাসহ কমপক্ষে ৫ হাজার সদস্য মোতায়েন করে তার প্রোগ্রামকে সফল করা হয়। আমাদের ধর্ম নিয়ে কৌতুক করতে মুনাওয়ার ফারুকিকে অনুমতি দিয়েছে কেটিআর। ২০ আগস্ট ওই শো হয়।

আমি ডিজিপি, কমিশনারকে অনুরোধ করেছিলাম, যে আমাদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিতে পারে তার মতো কমেডিয়ানকে অনুমতি দেয়া উচিত হবে না। কিন্তু কেটিআরের অহমিকা হলো মুসলিম ভোটব্যাংকের গেম। তারা মনে করেছিল যদি এই প্রোগ্রাম বাতিল হয়, তাহলে বিজয়ী হবে বিজেপি।

Print Friendly and PDF