চট্টগ্রাম, রোববার, ২ অক্টোবর ২০২২ , ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নিজের অনাগত সন্তানের জন্য দুধের শিশুকে হত্যা করলেন চাচি

প্রকাশ: ২৬ আগস্ট, ২০২২ ৩:৫৯ : অপরাহ্ণ

তান্ত্রিকের কথামতো ১৮ মাস বয়সী ভাতিজাকে বলি দিলেন এক নারী। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের উত্তর প্রদেশ রাজ্যের আমরোহা জেলার আদমপুর থানার অন্তর্গত মালাকপুর গ্রামে। এ ঘটনায় সরোজ দেবী (৩২) নামে ওই নারী ও তার স্বামীকে আটক করেছে পুলিশ।

বলির শিকার হতভাগ্য শিশুটির বাবা রমেশ কুমার (২৮) বলেন, ‘আমার বড় ভাই ও ভাবীর তিন সন্তান জন্মের পরপরই মারা যায়। চতুর্থবার গর্ভবতী হওয়ার পর অনাগত সেই সন্তান যেন বেঁচে থাকে সেই আশায় তারা একজন তান্ত্রিকের কাছে যান। সেই তান্ত্রিকের পরামর্শেই তারা আমার শিশুপুত্রকে হত্যা করেছে।’

পুলিশের বরাতে ভারতীয় গণমাধ্যম সিয়াসত ডেইলি এক প্রতিবেদনে জানায়, ছোট্ট শিশুটি বাড়ি থেকে নিখোঁজ হওয়ার দুদিন পর একটি আখ ক্ষেতে তার ছিন্নভিন্ন দেহের সন্ধান মেলে।

নিখোঁজের দিন শিশুটি তার চাচি সরোজ দেবী এবং দাদি গঙ্গা দেবীর কাছে ছিল। পরে ছেলেকে খুঁজে না পেয়ে বাবা রমেশ কুমার থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। তার একদিন পরে, একজন কৃষক গ্রাম থেকে প্রায় ৪০০ মিটার দূরে তার আখ ক্ষেতে একটি শিশুর শরীরের কিছু অংশ দেখতে পান এবং পুলিশকে খবর দেন।

পুলিশ দেহ উদ্ধারের পর পরিবারের সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে। জেরার মুখে চাচী সরোজ দেবী শিশুটিকে হত্যার কথা স্বীকার করেন। জানান, দেবরের ছেলেকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছেন তিনি।

আমরোহার পুলিশ সুপার আদিত্য লাঙ্গেহ বলেন, ‘দেখেই বোঝা যাচ্ছে শিশুটিকে বলিদানের রীতি মেনে হত্যা করা হয়েছে। তার চাচী হত্যার কথা স্বীকারও করেছেন।

পুলিশকে তিনি জানিয়েছেন, একজন তান্ত্রিকের নির্দেশে ছেলেটিকে হত্যা করেছে সে। শিশুটিকে প্রথমে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয় এবং পরে তার পা ও শরীরের অন্যান্য অংশ কেটে ফেলা হয়। শিশুটির কপালে তিলক লাগানো ছিল এবং সেই ছিন্ন মাথাটিও উদ্ধার করেছে পুলিশ।

Print Friendly and PDF