চট্টগ্রাম, শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২ , ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রাজধানীতে ফিরছে মানুষ, এখনো ফাঁকা ঢাকা

প্রকাশ: ১৩ জুলাই, ২০২২ ১০:৫৮ : পূর্বাহ্ণ

স্বজনদের সঙ্গে ঈদ উদ্‌যাপন শেষে কর্মস্থলে ফিরতে শুরু করেছেন কর্মজীবী মানুষ। অনেকে স্ত্রী-সন্তানদের রেখে একাই ফিরছেন ঢাকায়। আবার কেউ কেউ ফিরছেন সপরিবারেই। তবে এখনো আগের সেই চিরচেনা রূপে ফিরেনি ঢাকা। মঙ্গলবার অফিস-আদালত খুললেও ঈদের ছুটির আমেজ থাকায় এখনো ফাঁকা ঢাকা।

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, ঈদের রেশ এখনো রয়েছে রাজধানীতে। মঙ্গলবার অফিস-আদালত খুললেও ঈদের ছুটির আমেজ রয়েছে। সড়কগুলোতে চিরচেনা যানজট নেই। গাড়ি ও মানুষের চলাচলও কম। রাস্তাঘাট এখনো একেবারেই ফাঁকা।


এদিকে রাজধানীর বিভিন্ন বাস টার্মিনাল, সদরঘাট ও রেলস্টেশনে ঢাকাগামী যাত্রীদের ভিড় দেখা গেছে। ফেরার পথে তেমন যানজট নেই। তবে মঙ্গলবার (১২ জুলাই) যাত্রীর সংখ্যা যা দেখা গেছে তার চেয়ে বুধবার (১৩ জুলাই) আরও কয়েকগুণ বেশি হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।


কল্যাণপুর, টেকনিক্যাল, গাবতলীর বাস কাউন্টারের দেয়া তথ্য মতে, সোমবার বিকেল-সন্ধ্যার দিকে তাদের বেশ কয়েকটি বাস যাত্রীসহ ঢাকায় আসে। ঈদের পর দিন হওয়ায় এসব বাসে যাত্রী খুব বেশি ছিল না। তবে গতকাল মঙ্গলবার থেকে অফিস খুলে যাওয়ায় যাত্রী আসার চাপ বাড়ে।

এদিকে ঈদের ছুটি কাটিয়ে কর্মস্থলে ফিরতে শুরু করায় সকাল থেকে ঢাকা-ময়মনসিংহ, টাঙ্গাইল মহাসড়কে ঢাকামুখী মানুষের যাত্রা ছিল, তবে গাজীপুর অংশে স্বাভাবিকভাবেই চলছে যানবাহন। কোথাও যানজন কিংবা ধীরগতি লক্ষ করা যায়নি।


এছাড়া কর্মস্থল ফেরা মানুষের চাপ রয়েছে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে। আজ বুধবার (১৩ জুলাই) নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে শত শত বাইক মহাসড়ক হয়ে নৌরুট পার হচ্ছে।


ঘাট কর্তৃপক্ষ জানায়, ঈদের ছুটি শেষে আজ দ্বিতীয় কর্মদিবসে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুট দিয়ে যাত্রী ও নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মোটরবাইক পার হচ্ছে। তবে, এ চাপ ছিল কয়েকদিনের তুলায় বেশি। পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ছোট-বড় একুশটি ফেরি এবং ৩৩টি লঞ্চ চলাচল করছে। তবে, যাত্রীদের ছিল না কোনো অভিযোগ। নির্বিঘ্নে নদী পার হতে পেরে খুশি যাত্রীরা।

ঘাটের ব্যবস্থাপক মো. সালাম মিয়া জানান, অন্যান্য দিনের তুলনায় ঢাকামুখী যানবাহনের চাপ রয়েছে। তবে, সবগুলো ফেরিকে স্বচল রাখা হয়েছে। যানবাহনের চাপ বৃদ্ধি পেলেও আমরা নিয়ন্ত্রণ করতে পারব।এ মুহূর্তে যানবাহন রানিং রয়েছে বলে জানান এ কর্মকর্তা।

এদিকে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার সিমের হিসাব দিয়ে ফেসবুকে জানিয়েছিলেন, ঈদুল আজহা উপলক্ষে গত ৮ থেকে ৯ জুলাই পর্যন্ত ৬৫ লাখ ৭৮ হাজার ৮৬৬ জন ঢাকা ছেড়েছেন। সংখ্যায় কম-বেশি থাকতে পারে। কারণ প্রতিটি সিমের জন্য একজন মানুষ ধরা হলেও একাধিক নেটওয়ার্কের সিম ব্যবহার করেন অনেকে। আবার ১৮ বছরের নিচে তথা শিশু, বৃদ্ধ যাদের মোবাইল ফোন নেই তাদের গণনায় আনা হয়নি।

পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে গত ৯, ১০ ও ১১ জুলাই (শনিবার, রোববার ও সোমবার) ছিল সরকারি সাধারণ ছুটি। ঈদের ছুটির আগের দিন ছিল শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটি। এর আগে গত বৃহস্পতিবার ছিল ঈদের আগে শেষ কর্মদিবস। সেই হিসাবে টানা চার দিন ঈদের ছুটি শেষে মঙ্গলবার কর্মজীবীদের কর্মস্থলে যোগ দেয়ার কথা।

Print Friendly and PDF