চট্টগ্রাম, শুক্রবার, ১২ আগস্ট ২০২২ , ২৮শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কাজ শুধু রাত জাগা, এতেই মাসিক আয় ৪৬ লাখ টাকা!

প্রকাশ: ৪ জুলাই, ২০২২ ৪:১৩ : অপরাহ্ণ

কাজ শুধু রাত জাগা, এতেই মাসিক আয় ৪৬ লাখ টাকা!

টিকটকের আর্শীবাদে অনেকেই এখন তারকা বনে গেছেন। টিকটক থেকে তারকা বনে যাওয়া তেমনি একজন হলেন অস্ট্রেলিয়ার বাসিন্দা জেকি বোয়েম।

তিনি কোনো সরকার কিংবা বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন না। তারপরও তার মাসিক আয় ৪৯ হাজার ডলার। যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ৪৬ লাখ টাকা। তার কাজ শুধু রাতের পর রাত জেগে থাকা।

দর্শকদের মনোরঞ্জন করার জন্য এই অভিনব পন্থা বেছে নিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার বাসিন্দা জেকি বোয়েম। নেট মাধ্যমে তিনি ইনফ্লুয়েন্সার হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছেন। ২৮ বছর বয়সি যুবক অস্ট্রেলিয়ার জেকি কুইন্সল্যান্ডের গোল্ড কোস্ট এলাকায় বাস করেন।

ইনস্টাগ্রামেও তার ব্যাপক ফলোয়ার রয়েছে। তবে, জেকির কাজের জায়গা হল মূলত টিকটক। সেখানেই তিনি ‘স্লিপ লাইভ স্ট্রিম’-এর মাধ্যমে লাখের অধিক টাকা আয় করেন।

ডেইল মেইলের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে- তিনি প্রতি রাতেই টিকটকে লাইভে আসেন। তাঁর অনুরাগীরা লাইভ চলাকালীন বিভিন্ন ধরনের উপহার পাঠান।

কেউ সানগ্লাস, কেউ বক্সিং গ্লাভস, কেউ খেলনা রেলগাড়ি উপহারও পাঠান। তবে সবই ডিজিটাল মাধ্যমে, ডিজিটাল কয়েন ব্যবহার করে। অনুরাগীদের পাঠানো প্রতিটি উপহারের সঙ্গে তাঁর ঘরের মিউজিক সিস্টেমের যোগসূত্র রয়েছে।

টিকটকের মাধ্যমে এই উপহারগুলো পাঠানোর পরেই কখনও গ্যাসভর্তি বেলুন জেগে উঠে বিকট আওয়াজ করে। আবার কখনও ঘরময় আলো জ্বলে উঠে ‘সোপ বাব্‌ল’-এ তাঁর ঘর ভরে যায়।

এত জোরে আওয়াজ হওয়ার কারণে জেকির ঘুমও ভেঙে যায়। বহু দিন আগে থেকেই ঘুমানোর সময় টিকটকে সরাসরি ভিডিও করেন তিনি। তবে, গত এক মাসে তাঁর এই ভিডিওগুলো বিপুল জনপ্রিয়তা পায়। প্রায় ৮৫ লাখ মানুষ তাঁর ভিডিও দেখেছেন।

এর ফলে তিনি মাসে উপার্জন করেছেন ৪৯ হাজার মার্কিন ডলার। এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছেন, রাতের পর রাত এ ভাবে জেগে থাকতে তাঁর কোনও অসুবিধা হয় না। যত দিন তাঁর অনুরাগীরা তাঁকে উপহার পাঠাতে থাকবেন, তিনি তত দিনই সরাসরি সম্প্রচার (লাইভ স্ট্রিম) করবেন।

Print Friendly and PDF