চট্টগ্রাম, বুধবার, ৬ জুলাই ২০২২ , ২২শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নজরুলজয়ন্তী মেলায় বিখ্যাত রাজা মামার চা খেতে উপচে পড়া ভিড়

প্রকাশ: ২৬ মে, ২০২২ ১২:৪০ : অপরাহ্ণ

ত্রিশাল ( ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি    মধ্যপ্রাচ্যের চা দিয়ে প্রায় দুই বছর আগে ভাইরাল হওয়া বিখ্যাত রাজা মামা এবার  ময়মনসিংহের ত্রিশালে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্মজয়ন্তী মেলায় নিয়ে এসেছেন তাঁর নতুন আকর্ষণ রাজা মামা বালুর চা। মাত্র চার বছর ধরে  চা বিক্রি করে ১৮ টি দোকানের মালিক মালিক। ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে রয়েছে তার বিখ্যাত রাজা মামার চায়ের দোকান।
ভিন্ন ধরনের ভিন্ন স্বাদের খাবার  দেখে যারা অভ্যস্ত তারা খাচ্ছেন এই রাজা মামার ঐতিহ্যবাহী বালির  চা ।
নানান রকম অঙ্গভঙ্গি এবং চা নিয়ে নানান কসরৎ দেখে মজা পেয়ে থাকেন চা খেতে আগতরা।
মধ্যপ্রাচ্যের  ও অন্যান্য দেশের মতো রাজা মামা তৈরি করেছেন তার রাজা বালুর চা।
  চা এর সাথে বিভিন্ন সামগ্রী কাজুবাদাম , দেশীয় গাভীর দুধ  ব্যবহার করে থাকেন। সরাসরি আগুনে উত্তপ্ত না করে বালু দিয়ে এই চা তৈরি করে চমক সৃষ্টি করেছেন । ময়মনসিংহের ত্রিশালের দরিরামপুর নজরুল একাডেমী মাঠে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৩ তম জন্ম জয়ন্তী  মেলায় রাজা মামার বালু চা খেতে আগতদের উপচে পড়া ভিড় । আর যারা চা খেতে অভ্যস্ত নয় তারাও একনজর দেখছেন বালি দিয়ে তৈরি চায়ের দোকান।
 ত্রিশাল পৌরসভার নওধার এলাকার জনৈক
  আজিমুদ্দিনের সন্তান কবি আজাহার  ওরফে  রাজা মামা এক সময় মধ্যপ্রাচ্যের দেশ দুবাই শহরে কর্মসংস্থানের জন্য ছুটে যান। ওখানে
 তেমন সুবিধা করতে পারেনি। কিন্তু মধ্যপ্রাচ্যের অবস্থান  করে এ বালির চা তৈরির পদ্ধতি শিখে আসেন।
নিজের মেধাকে কাজে লাগিয়ে সর্বপ্রথম  ঢাকা শহরে  একটি  বালু চায়ের দোকান দেন। বর্তমানে তিনি ১৮ টি  দোকানের মালিক। সব মিলিয়ে প্রায় ৫০  জন শ্রমিক তার দোকানে কাজ করছেন।
নজরুল জয়ন্তী মেলায় ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আখতারুজ্জামান তার বালুর চা  খেয়ে  প্রশংসা করেছেন। অন্যরাও আসছেন তার দোকানে বালু দিয়ে তৈরি চা খেতে ।

Print Friendly and PDF