চট্টগ্রাম, রোববার, ২৭ নভেম্বর ২০২২ , ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

করোনার বিরুদ্ধে চা, লবণ পানি দিয়ে লড়ছে ‘অসহায়’ উত্তর কোরিয়া

প্রকাশ: ২২ মে, ২০২২ ৪:০২ : অপরাহ্ণ

করোনাভাইরাসে নাকাল হয়ে গেছে উত্তর কোরিয়া। দেশটির হাতে নেই করোনার টিকা। তার ‘অসহায়’ উত্তর কোরিয়া করোনা মোকাবিলায় প্রচলিত মেডিসিনের আশ্রয় নিয়েছে। খবর বিবিসির।

বিশ্বজুড়ে যখন করোনার বাড়বাড়ন্ত তখন এই মহামারি থেকে বাঁচতে ২০২০ সালের শুরুর দিকে নিজ দেশের সীমান্ত সিল করে দিয়েছিল উত্তর কোরিয়া। এমনকি বিদেশ থেকে মেডিকের সহায়তা নিতেও অস্বীকৃতি জানায় দেশটি।

এখন করোনার কাছে ‘অসহায়’ হয়ে পড়েছে উত্তর কোরিয়া। মহামারির হাত থেকে বাঁচতে মরিয়া দেশের জনগণকে এই ‘জ্বরের’ বিরুদ্ধে লড়তে প্রচলিত চিকিৎসা পদ্ধতি ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে সরকারিভাবে।

যারা গুরুতর অসুস্থ নয় তাদের জন্য সরকারি সংবাদপত্র রোডং সিনমুন আদা বা হানিসাকল চা এবং একটি উইলো-পাতার পানীয়সহ প্রতিকারের পরামর্শ দিয়েছে। গরম পানীয় কিছু কোভিড উপসর্গকে প্রশমিত করতে পারে, যেমন গলা ব্যথা বা কাশি এবং যখন রোগীরা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি পানি শূন্যতায় ভুগছে, এটি তখন হাইড্রেশনে সাহায্য করে।

আদা এবং উইলো পাতাও প্রদাহ উপশম করে এবং ব্যথা কমায়। কিন্তু এটি করোনার জন্য একটি চিকিত্সা নয়। উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় মিডিয়া সম্প্রতি এমন এক দম্পতির সাক্ষাত্কার নিয়েছে যারা সকালে এবং রাতে লবণ পানিতে গড়গড়া করার পরামর্শ দিয়েছিলেন।

রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থার খবরে বলা হয়েছে, ‘অ্যান্টিসেপটিক সলিউশন’ তৈরি করতে পিয়ংইয়ংয়ে ‘হাজার টন লবণ’ পাঠানো হয়েছে। কিছু গবেষণায় লবণ পানি দিয়ে কুলকুলি করা এবং নাক ধোয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে, যেগুলো সাধারণ সর্দি সৃষ্টিকারী ভাইরাসগুলোর বিরুদ্ধে লড়াই করে। কিন্তু এটি কোভিডের বিস্তারকে ধীর করে দেয় এমন প্রমাণ নেই।

Print Friendly and PDF