চট্টগ্রাম, বুধবার, ৬ জুলাই ২০২২ , ২২শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আসামের ভয়াবহ বন্যায় ৯ প্রাণহানি, ক্ষতিগ্রস্ত ৬ লাখ মানুষ

প্রকাশ: ১৯ মে, ২০২২ ১১:২৯ : পূর্বাহ্ণ

প্রতিবেশী দেশ ভারতের আসাম রাজ্যের ২৭ জেলায় বন্যায় সাড়ে ৬ লাখের বেশি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বর্ষা মৌসুমের আগে ভারী বর্ষণে সৃষ্ট এ বন্যায় কমপক্ষে ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এনডিটিভির খবর অনুযায়ী, বন্যাকবলিত এলাকায় নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য সরবরাহ ও যোগাযোগব্যবস্থা চালু করতে হিমশিম খাচ্ছে রাজ্য সরকার।

ভারী বর্ষণের কারণে বিশ্বের অন্যতম দীর্ঘ নদী ব্রহ্মপুত্রের পানি বেড়ে গেলে তীরবর্তী গ্রামগুলো প্লাবিত হয়। ইতিমধ্যে ৪৮ হাজারের বেশি মানুষকে ২৪৮টি ত্রাণ শিবিরে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

প্রতিবেদনে এও বলা হয়েছে, সবচেয়ে বন্যাকবলিত জেলা হোজাই ও কাছাড়। এই দুই জেলার প্রতিটিতে এক লাখের বেশি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। চলমান উদ্ধার প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে হোজাই জেলা থেকে আটকে পড়া দুই হাজারের বেশি মানুষকে উদ্ধার করেছে সেনাবাহিনী।

বৃহস্পতিবার পঞ্চম দিনের মতো দক্ষিণ আসামের দিমা হাসাও জেলা বিচ্ছিন্ন রয়েছে। ভারী বর্ষণে ভূমিধসের কারণে এ জেলায় সড়ক ও রেল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। বন্যায় গত রোববার থেকে বরাক উপত্যকার পাশাপাশি ত্রিপুরা, মিজোরাম ও মণিপুরের সড়ক ও রেল যোগাযোগও বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে।

বন্যায় নিহত ব্যক্তিদের প্রতিটি পরিবারকে চার লাখ রুপি করে আর্থিক সহায়তা দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে আসাম সরকার। সরকার বরাক উপত্যকা থেকে উড়োজাহাজ চলাচলে আঞ্চলিক উড়োজাহাজ সংস্থা ‘ফ্লাইবিগের’ সঙ্গে অংশীদারত্বের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। টিকিটের মূল্য তিন হাজার রুপি নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। বাকি খরচ সরকার বহন করবে বলে সূত্রগুলো জানিয়েছে।

দুই দিন ধরে ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় আসাম, মেঘালয় ও অরুণাচল প্রদেশে প্রবল বৃষ্টিপাত হচ্ছে। আগামী চার দিনও ওই অঞ্চলজুড়ে ব্যাপক বৃষ্টিপাত হতে পারে বলে সতর্কতা জারি করেছে গুয়াহাটি আবহাওয়া দপ্তর। কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে আসামকে সব ধরনের সহায়তা দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত

Print Friendly and PDF