চট্টগ্রাম, বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২ , ১৬ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ইউক্রেনীয় সেনাদের আত্মসমর্পণ, রুশ বাহিনীর দখলে শহর

প্রকাশ: ১৭ মে, ২০২২ ৫:২১ : অপরাহ্ণ

দেশের উত্তরাঞ্চলীয় উপকূলীয় শহর মারিউপোলের নিয়ন্ত্রণ রুশ বাহিনীর হাতে ছেড়ে দিয়েছে ইউক্রেনের সেনাবাহিনী। সোমবার শহরটির ইস্পাত কারখানা আজভস্তাল প্ল্যান্টে অবস্থান নেওয়া ইউক্রেনীয় সেনাসদস্যদের আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনীর কমান্ডার। খবর রয়টার্স ও আরটি।

সোমবার সন্ধ্যায় ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনীর চিফ অব স্টাফের দপ্তর থেকে এ বিষয়ে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়েছে।

সেখানে বলা হয়েছে, ‘মরিউপোলের আজভস্তাল এলাকায় অবস্থান নেওয়া বেসামরিক লোকজনের নিরপত্তা নিশ্চিত করতে মারিউপোল ইউনিটের সেনাসদস্যদের দায়িত্ব দিয়েছিল কেন্দ্রীয় সেনা কমান্ড।

মারিউপোল ইউনিটের সেনাসদস্যদের অভিনন্দন জানিয়ে বিবৃতিতে আরও বলা হয়, আজজভস্থালের সেনা সদস্যরা সেই মিশন সম্পূর্ণ করেছে। সাধারণ জনগণকে রক্ষাকারী এসব সেনারা আমাদের জাতীয় বীর।

ইউক্রেনে সামরিক অভিযানের শুরু থেকেই রুশ বাহিনীর কাছে কৌশলগতভাবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল দেশটির উপকূলীয় শহর মারিউপোল। ইউক্রেনের যেসব অঞ্চলে দেশটির সেনাবাহিনীর সঙ্গে রুশ বাহিনীর সবচেয়ে বেশি সংঘাত হয়েছে, সেসবের মধ্যে আজভ সাগরের তীরবর্তী এই শহরটি ছিল অন্যতম।

এপ্রিল মাসেই মারিউপোল শহরের অধিকাংশ এলাকা দখলে নিয়ে এসেছিল রুশ বাহিনী। একমাত্র ব্যতিক্রম ছিল শহরটির প্রান্তে অবস্থিত আজভস্থাল ইস্পাত কারখানা। সাবেক সোভিয়েত আমলে প্রায় ৫ মাইল এলাকাজুড়ে প্রতিষ্ঠিত এই কারখানাটি ছিল ইউক্রেনীয় বাহিনীর সবচেয়ে শক্তিশালী ঘাঁটি।

এপ্রিল থেকে কয়েক সপ্তাহ ধরে রুশ সেনাদের সঙ্গে যুদ্ধ হয় ইউক্রেনীয় বাহিনীর। এক পর্যায়ে গোটা কারখানা উড়িয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন এই যুদ্ধে রুশ বাহিনীর অন্যতম শীর্ষ কমান্ডার রমজান কাদিরভ; পরে পুতিনের নির্দেশে সেই সিদ্ধান্ত থেকে ফিরে আসেন তিনি।

চিফ অব স্টাফের দপ্তর থেকে দেওয়া বিবৃতিতে আরও বলা হয়, আজভস্তালের ওই ইস্পাত কারখানায় অবস্থান নিয়েছিলেন ৩ শতাধিক সেনা। তাদের মধ্যে বর্তমানে জীবিত আছেন ২৬৩ জন।

Print Friendly and PDF