চট্টগ্রাম, বুধবার, ৬ জুলাই ২০২২ , ২২শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পেঁয়াজের মুনাফা মধ্যস্বত্বভোগীদের পকেটে

প্রকাশ: ১৬ মে, ২০২২ ১১:০৭ : পূর্বাহ্ণ

কৃষকদের ঘরে থাকা অবস্থায় পেঁয়াজ বিক্রি হয় ১০ টাকার নিচে। অথচ ব্যবসায়ীদের হাতে গিয়ে সেই পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে তিন থেকে ৫ গুণ বেশি দামে। গত কয়েক বছর ধরেই এমন হয়ে আসছে মেহেরপুরের কৃষকদের। অভিযোগ, ভরা মৌসুমে পেঁয়াজ আমদানি হওয়ায় বড় ধরণের লোকসান গুণতে হচ্ছে তাদের।

চলতি মৌসুমে এক কেজি পেঁয়াজ উৎপাদনে কৃষকের খরচ হয়েছে, ১৪ থেকে ১৭ টাকা। আর বিঘা প্রতি খরচ ৮০ থেকে ৯০ হাজার টাকা। অথচ ভরা মৌসুমে কৃষককে সেই পেঁয়াজ বিক্রি করতে হচ্ছে ১০ টাকার নিচে।

শুধু চলতি মৌসুমই নয়, পেঁয়াজ আমদানির কারণে প্রতিবছরই লোকসানে পড়েন কৃষকরা। যদিও কৃষি বিপণন কেন্দ্রের কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম বলছেন, ভরা মৌসুমে পেঁয়াজ আমদানি না করার অনুরোধ জানানো হয়েছিলো বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে।

এদিকে অভিযোগ, কৃষকের ঘরে থাকা পেঁয়াজ শেষ হলেই, আমদানি বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। আর ব্যবসায়ীরা বলছেন, আমদানি বন্ধের কয়েকদিনের মাথায় তিন দফা বেড়েছে পেঁয়াজের দাম।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের  অতিরিক্ত পরিচালক (শস্য) এ কে এম কামরুজ্জামান বলেন, প্রণোদনা, মিশ্র চাষ বাড়িয়ে কৃষকদের পেঁয়াজ চাষে উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে।

প্রতিবছর উৎপাদন বাড়লেও, মূলধন না উঠায় পেঁয়াজ চাষে আগ্রহ হারাচ্ছেন কৃষক।

 

 

Print Friendly and PDF