চট্টগ্রাম, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২২ , ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রমযানে খাদ্যে ভেজাল রোধে মাঠে থাকবে মোবাইল কোর্ট

প্রকাশ: ২ এপ্রিল, ২০২২ ৫:৫৭ : অপরাহ্ণ


পবিত্র রমযান মাস আসলেই দেশের মানুষের মাঝে তৈরী হয় উৎকন্ঠা। দাম বাড়াসহ খাদ্যে ভেজাল নিয়ে শঙ্কায় থাকেন ক্রেতারা। তবে এবার রমযান মাসে খাদ্যের মান ঠেকাতে মোবাইল কোর্ট মাঠে নামাবে শিল্প মন্ত্রণালয়।

শনিবার সকালে শিল্প মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সংবাদ সম্মেলনে এই কথা জানিয়েছেন শিল্প মন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন।

তিনি জানান, খাদ্য পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণ, নকল ও নিম্নমানের পণ্য উৎপাদন ও বাজারজাতকরণ রোধ করতে অতিরিক্ত মোবাইল কোর্ট ও সার্ভিল্যান্স কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে রমযান মাস জুড়ে।

তিনি জানান, ঢাকা মহানগরীতে বিএসটিআইয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে পণ্যের সঠিক ওজন ও পরিমাপ নিশ্চিত করা হবে। ওজন ও পরিমাপে কারচুপি রোধ করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় ছুটির দিনসহ স্বাভাবিক কার্যদিবসেও মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হবে।

পবিত্র রমযান মাসে মানসম্মত খাদ্য ও পানীয় বিশেষ করে যেমন- মুড়ি, খেজুর, সফট ড্রিংকস পাউডার, কার্বোনেটেড বেভারেজ, ফ্রুট সিরাপ, ফ্রুট ড্রিংকস, ভোজ্যতেল, সরিষার তেল, ঘি, পাস্তুরিত দুধ, নুডুলস, ইনস্ট্যান্ট নুডুলস, লাচ্ছা সেমাই, সেমাই, পানি, ডেক্সট্রোজ মনোহাইড্রেট এবং ইফতার সামগ্রী বিক্রয় ও বিতরণের ওপর বিএসটিআইয়ের নজরদারি জোরদার করবে।

ঢাকা মহানগরীর পাশ্ববর্তী জেলা ও উপজেলায় যেমন- নারায়ণগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, টাঙ্গাইল, নরসিংদী, গাজীপুর, কিশোরগঞ্জ, সাভার, কেরানীগঞ্জ ও ভৈরব এলাকায় মোবাইল কোর্ট ও পরিচালনা করা হবে।

এছাড়া জেলা-উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় বিএসটিআইয়ের সব বিভাগীয়-জেলা কার্যালয়ের মাধ্যমে প্রতিদিন মোবাইল কোর্ট ও সার্ভিল্যান্স কার্যক্রম পরিচালনার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে বিএসটিআইয়ের সব কার্যালয়কে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার ও শিল্প সচিব জাকিয়া সুলতানা।

শিল্পমন্ত্রী জানান, আসন্ন রমযান মাস উপলক্ষে ভেজাল ও নকল পণ্য সরবরাহ প্রতিরোধে বিশেষ কর্মসূচি হিসেবে ইফতার ও সেহরিতে ব্যবহৃত বিভিন্ন ধরনের খাদ্যপণ্য যেমন- মুড়ি, খেজুর, সফট ড্রিংকস পাউডার, কার্বোনেটেড বেভারেজ, ফ্রুট সিরাপ, ফ্রুট ড্রিংকস, ভোজ্যতেল, সরিষার তেল, ঘি, পাস্তুরিত দুধ, নুডুলস, ইনস্ট্যান্ট নুডুলস, লাচ্ছা সেমাই, সেমাই, পানি, ডেক্সট্রোজ মনোহাইড্রেট বিএসটিআইয়ের সার্ভিল্যান্স টিমের মাধ্যমে খোলাবাজার থেকে সংগ্রহপূর্বক ল্যাবে পরীক্ষা করা হচ্ছে।

৭৪৮টি নমুনার মধ্যে ৬৮৫টি নমুনা পরীক্ষা শেষে বিএসটিআই জানিয়েছেন, নিম্নমানের নমুনা পাওয়া গেছে ১৫টি। ওসব পণ্য প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানকে কারণ দর্শানো নোটিশ দেওয়া হয়েছে।

Print Friendly and PDF