চট্টগ্রাম, রোববার, ২ অক্টোবর ২০২২ , ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

মিয়ানমারের হেলিকপ্টার থেকে ছোড়া গোলা পড়লো বাংলাদেশে, সীমান্তে আতঙ্ক বাড়ছেই

প্রকাশ: ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ২:৪৩ : অপরাহ্ণ

আবারও মিয়ানমারের যুদ্ধবিমান থেকে ছোঁড়া ২টি গোলা বাংলাদেশ সীমান্তের ভেতরে পড়েছে। শনিবার (৩ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টায় বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের রেজু আমতলী বিজিবি বিওপি আওতাধীন সীমান্ত পিলার ৪০-৪১ এর মাঝামাঝি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সকাল সাড়ে ৯টায় রেজু আমতলী বিজিবি বিওপি আওতাধীন সীমান্ত পিলার ৪০-৪১ এর মাঝামাঝি মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ২টি যুদ্ধবিমান এবং ২টি ফাইটিং হেলিকপ্টার আগমন করে। এ সময় যুদ্ধবিমান থেকে আনুমানিক ৮ থেকে ১০টি গোলা ফায়ার করা হয় এবং হেলিকপ্টার থেকেও আনুমানিক ৩০ থেকে ৩৫টি ফায়ার করতে দেখা যায়।

সীমান্ত পিলার ৪০ বরাবর আনুমানিক ১২০ মিটার বাংলাদেশের অভ্যন্তরে যুদ্ধ বিমান থেকে ফায়ারকৃত ২টি গোলা পতিত হয়।

এছাড়া নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ১ নম্বর ওয়ার্ডের তুমব্রু বিজিবি বিওপির সীমান্ত পিলার ৩৪-৩৫ এর মাঝামাঝি মিয়ানমার ২ বিজিপির তুমব্রু রাইট ক্যাম্প থেকে ৪ রাউন্ড ভারি অস্ত্রের ফায়ার করে যা এখনো চলছে। এমনকি মিয়ানমার মুরিঙ্গাঝিরি ক্যাম্প ও তুমব্রু রাইট ক্যাম্প থেকে থেমে থেমে মর্টার ফায়ারও চলছে বলে জানিয়েছেন নো ম্যানস ল্যান্ড রোহিঙ্গা ক্যাম্পের চেয়ারম্যান দিল মোহাম্মদ।

তিনি চ্যানেল 24 কে জানান, অন্যান্য দিনের চেয়ে শনিবার সকাল থেকে ফায়ারিং বেড়ে গেছে। ৫টি যুদ্ধবিমান ও ২টি ফাইটিং হেলিকপ্টার থেকে গোলা ও বোমা ছোঁড়া হচ্ছে। সীমান্তের মানুষ এখন চরম আতঙ্কে আছেন।

এদিকে কোনও প্রকার হতাহতের খবর পাওয়া না গেলেও এরূপ গোলাগুলির শব্দে এলাকায় চরম আতংক বিরাজ করছে বলে জানান স্থানীয় সিএনজি চালক সাদেক হোসেন ও কৃষক আবু বক্কর ছিদ্দিক।

বান্দরবান পুলিশ সুপার তরিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম সীমান্তে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় আছে এবং গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়েছে।

Print Friendly and PDF