চট্টগ্রাম, মঙ্গলবার, ৪ অক্টোবর ২০২২ , ১৯শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

আসরের নামাজের সময় মসজিদ থেকে মুসল্লি অপহরণ

প্রকাশ: ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ৫:২৯ : অপরাহ্ণ

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ নাইজেরিয়ার একটি মসজিদে নামাজ শুরুর ঠিক আগমুহূর্তেই অস্ত্রের মুখে বেশ কয়েকজন মুসল্লিকে অপহরণ করেছে সন্ত্রাসীরা।

রয়টার্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী, শুক্রবার দেশটির উত্তরপশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ জামফারার জুগু শহরের জুমুয়াত কেন্দ্রীয় মসজিদে আসরের নামাজ চলাকালে ওই মুসল্লিদের তুলে নিয়ে যায় অস্ত্রধারীরা।

নাইজেরিয়ার জামফারা প্রদেশের রাজধানী গুসাউ থেকে ১৭০ কিলোমিটার দূরের শহর জুগু। জামফারা প্রদেশ পুলিশের মুখপাত্র মোহাম্মেদ শেহু জানান, ঠিক কতজন মুসল্লিকে অপহরণ করা হয়েছে, তা এখনও জানা যায়নি।

কারা এই অপহরণের সঙ্গে যুক্ত— তা ও শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। ইব্রাহিম আমিনু নামের এক প্রত্যক্ষদর্শী রয়টার্সকে জানান, সন্ত্রাসীরা সাধারণ মুসল্লির বেশে এসেছিল এবং তাদের কাপড়ে আড়ালে লুকানো ছিল অস্ত্র।

তিনি আরও বলেন, যখন তারা মসজিদে ঢোকে, সে সময় আসরের নামাজের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন মুসল্লিরা। মসজিদে ঢোকার পরেই কাপড়ের আড়াল থেকে অস্ত্র বের করে ফাঁকা গুলি ছোড়ে সন্ত্রাসীরা এবং সেখান থেকে বেশ কয়েকজন মুসল্লিকে জিম্মি করে নিয়ে যায়।

মোহাম্মদ বুকার জুগু নামের এক ব্যক্তি জানান, অপহৃত মুসল্লিদের মধ্যে তার ২২ বছর বয়সী ছোটোভাইও রয়েছেন। শুক্রবার রাতে ছোটভাইয়ের মোবাইল নাম্বার থেকে জুগুর মোবাইলে কল আসে। সেখানে অপরিচিত একটি কণ্ঠস্বর তাকে ভাইয়ের মুক্তিপণ বাবদ টাকা প্রস্তুত রাখার নির্দেশ দেয়। তারপর আর কোনো ফোন আসেনি।

জামফারা পুলিশের মুখপাত্র মোহাম্মদ শেহু বলেন, ‘অপরাধীদের ধরতে ইতোমধ্যে পুলিশ ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা অভিযান শুরু করেছেন।’

গত কয়েক বছর ধরে দেশজুড়ে গড়ে ওঠা বেশ কিছু সশস্ত্র সন্ত্রাসীগোষ্ঠী ও জঙ্গি সংগঠন বোকো হারামের উৎপাতে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন নাইজেরিয়াবাসী। স্থানীয়ভাবে এসব সন্ত্রাসীগোষ্ঠীকে ‘ডাকাতদল’ বলা হয়। যে কোনো সময়, দেশের যে কোনো গ্রামে-শহরে হামলা চালায় এই ডাকাতদল।

Print Friendly and PDF