চট্টগ্রাম, মঙ্গলবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২১ , ২২শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অপহৃত যুবক টেকনাফে উদ্ধার, আটক ১

প্রকাশ: ১৩ অক্টোবর, ২০২১ ১১:০৯ : পূর্বাহ্ণ

কক্সবাজারের উখিয়ায় ‘মুক্তিপণের দাবিতে’ রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অপহৃত যুবককে ঘটনার চারদিন পর টেকনাফ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এক রোহিঙ্গাকে আটক করেছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)।

মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) বিকেল সাড়ে ৫ টায় টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের লেদা ২৪ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মৌলভীপাড়ায় এ অভিযান চালানো হয়।

আটক মো. আতাউল্লাহ (২৫) টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের লেদা ২৪ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বি-ব্লকের বশির আহাম্মদের ছেলে। উদ্ধার মো. আরিফুল্লাহ (২৮) উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নের বালুখালী ১৭ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের (তুর্কি পাড়া) এইচ-১০০ ব্লকের মোহাম্মদ রশিদের ছেলে।

পুলিশ সুপার তারিকুল বলেন, গত ৮ অক্টোবর দুপুরে উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে মো. আতাউল্লাহকে একদল দুর্বৃত্ত জিন্মি করে অপহরণ করে। পরে স্বজনরা বিভিন্ন স্থানে খুঁজাখুঁজির পরও তার সন্ধান পায়নি। এরপর স্বজনরা গত ৯ অক্টোবর এপিবিএনের স্থানীয় ক্যাম্পে ঘটনার ব্যাপারে অভিযোগ জানায়। ঘটনার ব্যাপারে অপহৃত রোহিঙ্গা যুবকের স্বজনদের কাছ থেকে অভিযোগ পাওয়ার পর থেকে এপিবিএন সদস্যরা উদ্ধারে অভিযান শুরু করে।

এরইমধ্যে গত ১০ অক্টোবর অপহরণকারীরা মুঠোফোনে অপহৃত যুবকের স্বজনদের কাছে মুক্তিপণের টাকা দাবি করে। এক পর্যায়ে মঙ্গলবার বিকেলে অপহরণকারী দুর্বৃত্তরা টেকনাফের লেদা ২৪ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অবস্থান করছে খবরে এপিবিএন এর একটি দল অভিযান চালায়। এতে ক্যাম্পটির বি-ব্লকের জনৈক হাসানের বাড়িতে আটক রাখা অবস্থায় অপহৃত যুবক আরিফুল্লাহকে উদ্ধার করা হয়। এসময় ঘটনাস্থলে এপিবিএন সদস্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে ৪/৫ জন লোক দৌড়ে পালানোর চেষ্টা চালায়। পরে এপিবিএন সদস্যরা ধাওয়া দিয়ে একজনকে আটক করতে সক্ষম হয়।

এপিবিএনের এ কর্মকর্তা বলেন, আটক ব্যক্তি স্বীকারোক্তিতে জানিয়েছে, মুক্তিপণের দাবিতে অপহরণ ঘটনা ঘটিয়েছে। মুক্তিপণের টাকা আদায়ের জন্য ওই বাড়িতে আরিফুল্লাহকে আটক রাখা হয়েছিল।

আটক ব্যক্তিকে টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা করা হয়েছে বলে জানান পুলিশ সুপার তারিকুল।

Print Friendly and PDF