চট্টগ্রাম, সোমবার, ৮ মার্চ ২০২১ , ২৩শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সাতকানিয়ায় সড়ক সংস্কারে দুর্ভোগে প্রতীকী প্রতিবাদ

প্রকাশ: ১৮ জানুয়ারি, ২০২১ ৭:৩৫ : অপরাহ্ণ

মোঃ নাজিম উদ্দিন, দক্ষিণ চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় বাজালিয়া বোমাং হাট শীলঘাটা সড়ক সংস্কার কাজে ঠিকাদারের ধীরগ‌তি ও অনিয়মের প্রতিবাদে মুমূর্ষু রোগী ও লাশ নেওয়ার প্রতীকী প্রতিবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

ভুক্তভোগী জনসাধারণের ব্যানারে পোস্টার ও প্লেকার্ড নিয়ে (১৮ জানুয়ারি) সোমবার বেলা ৩টায় বাজালিয়া ইউনিয়নের বোমাং হাট এলাকায় মানববন্ধনের আয়োজন করেন।

এ সময় বক্তারা বলেন, বাজালিয়া-পুরানগড় সড়ক হয়ে প্রতিদিন কয়েক হাজার মানুষ চলাচল করেন। শিমের রাজ্য খ্যাত পুরানগড় থেকে শীত মৌসুমে প্রতিদিন প্রায় তিন থেকে চার লাখ টাকার সবজি দেশের বিভিন্ন প্রান্তে নিয়ে যাওয়া হয়।

দীর্ঘ ১৫-১৬ বছর পর সড়কটির সংস্কারকাজ শুরু হয়েছে। কিন্তু ঠিকাদারেরা সংস্কারকাজে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করছেন। তাছাড়া সংস্কারকাজে ধীর গতি ও সড়কের মাঝখানে পাথর ও বালি ফেলে রেখে ঠিকাদারের লোকজন সড়কটি অচল করে রেখেছেন।

এতে সাধারণ মানুষের চলাচলে ভোগান্তির পাশাপাশি এলাকার লোকজন রোগীকে কোলে করে হাসপাতালে নিতে বাধ্য হচ্ছেন।

তাছাড়া পুরানগড় ও বাজালিয়ায় উৎপাদিত সবজি পরিবহন করা সম্ভব না হওয়ায় কৃষকরা ন্যায্যমূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসা কর্মকর্তা মোরশেদ আলী, ব্যবসায়ী নাজিম উদ্দিন, শেরে বাংলা উচ্চবিদ্যলয়ের সহকারী শিক্ষক মুনাওয়ারুল কাদের চৌধুরী, সমাজ সেবক আইয়ুব মিয়া সিকদার, তৌফিকুর রহমান সিকদার, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি ইয়াসিন চৌধুরী, সাতকানিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি রকিম উদ্দিন প্রমুখ।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সড়কটির সংস্কারকাজের এক অংশের ঠিকাদার নুরুল কবির বলেন, বিকল্প কোনো জায়গা না থাকায় সংস্কারকাজের জন্য আনা পাথর ও বালুগুলো সড়কের উপর রাখতে হয়েছে। তাছাড়া সামান্য একটু সমস্যার কারণে কয়েকদিন সংস্কারকাজ বন্ধ ছিল। তবে আগামী পরশু থেকে আবারও সংস্কারকাজ শুরু করা হবে।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের সাতকানিয়া উপজেলা প্রকৌশলী পারভেজ সারোয়ার হোসেন বলেন, বাজালিয়া হতে পুরানগড় পর্যন্ত প্রায় আড়াই কোটি টাকা ব্যায়ে দুই ভাগে সড়কটির প্রায় দুই কিলোমিটার সংস্কারকাজ করা হচ্ছে। একজন ঠিকাদার সড়কটির সংস্কারকাজে স্থানীয় বালু ব্যবহারের জন্য মজুত করেছিলেন।

তাঁকে ওই বালু ব্যবহার করতে দেওয়া হয়নি। এতে সংস্কারকাজ কয়েকদিনের জন্য বন্ধ ছিল। আমরা সড়কটি পরিদর্শন করেছি। দুই-এক দিনের মধ্যে সংস্কারকাজ আবারও শুরু করা হবে।।

Print Friendly and PDF