চট্টগ্রাম, সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১ , ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ভোটের দিন সিএমপি কার্যালয়ে ‘আটক’ ছিলেন আ’লীগ নেতা মাসুম!

প্রকাশ: ২৮ জানুয়ারি, ২০২১ ৩:২০ : অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনের দিন (২৭ জানুয়ারি) ১৪ নম্বর লালখান বাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দিদারুল আলম মাসুম ৮ ঘন্টা ‘আটক’ ছিলেন চট্টগ্রাম মেট্টোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কার্যালয়ে।

লালখান বাজার ওয়ার্ডে নির্বাচনের পরিবেশ বিনষ্টের শঙ্কায় ভোটের দিন সকালে তাকে সিএমপি কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে যাওয়া হয়। ভোটের দিন সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত মাসুমকে আটক রাখা হয়। ভোট শেষ হওয়ার পর তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। খবর রাজনীতি সংবাদ

নির্বাচনে ১৪ নম্বর লালখান বাজার ওয়ার্ডে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আবুল হাসনাত মো. বেলাল। নগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আবুল হাসনাত বেলাল শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরীর অনুসারী। এ ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ছিলেন সাবেক কাউন্সিলর এ এফ কবির আহমেদ মানিক।

দলীয় মহল থেকে জানা গেছে, আবুল হাসনাত বেলালের সাথে ‘সাপে-নেউলে’ সম্পর্ক দিদারুল আলম মাসুমের। মাসুম নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারী। তিনি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন চেয়ে পাননি। পরে তিনি বিদ্রোহী হিসেবে ভোটের মাঠে থাকলেও শেষ পর্যন্ত প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নেন।

মাসুম ভোটের মাঠ ছেড়ে দিলেও বেলালের সাথে বিরোধের জেরে তিনি নির্বাচনে মানিকের পক্ষে অবস্থান নেন বলে দলীয় মহলে প্রচার ছিল।

এ বিষয়ে জানতে সিএমপি কমিশনার সালেহ্ মোহাম্মদ তানভীরের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি।

সিএমপির উত্তর জোনের কর্মকর্তারা এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

ভোটের দিন সিএমপি কার্যালয়ে ‘আটক’ থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে দিদারুল আলম মাসুম বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, ‘আমি এলাকায় থাকলে হয়তো কোনো ঝামেলা হতো-এমন আশঙ্কায় আমাকে ডেকে নেওয়া হয়েছে।’

Print Friendly and PDF