চট্টগ্রাম, সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১ , ৫ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ভোট প্রশ্নবিদ্ধ করতে বিএনপির পরিকল্পিত হামলা: আ’লীগ

প্রকাশ: ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ৬:২১ : অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনকে ‘প্রশ্নবিদ্ধ’ করতে বিএনপি ‘পরিকল্পিতভাবে বিভিন্ন কেন্দ্রে হামলা করছে’ বলে অভিযোগ করেছে আওয়ামী লীগ।

বুধবার দুপুরে নগরীর বহদ্দারহাটে আওয়ামী লীগের মেয়র পদপ্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরীর প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করা হয়।

রেজাউল করিমের প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট ও নগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল অভিযোগ করেন, ভোটের মাঠে বিএনপির হামলায় তাদের তিনজন কর্মী আহত হয়েছেন।

বাবুল বলেন, সকাল থেকেই কেন্দ্রে কেন্দ্রে ভোটারদের দীর্ঘ সারি ছিল। তারা ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পেরে গৌরবান্বিত বোধ করছেন। তারা নিজের ভোট নিজেই দিয়েছেন।

কিন্তু বিএনপি নির্বাচনকে ‘প্রশ্নবিদ্ধ করছে’ মন্তব্য করে তিনি বলেন, অগ্নিসন্ত্রাসের কারণে বিএনপির জনভিত্তি নেই। তারা নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা চালায়। কিন্তু ভোটের দিন মাঠে থাকে না। এটা তাদের কৌশল।

ভোটকেন্দ্রে ভোটারদের লম্বা লাইন দেখে বিএনপি ‘ভীতসন্ত্রস্ত’ হয়ে বহিরাগতদের নিয়ে বিভিন্ন কেন্দ্রে ‘পরিকল্পিতভাবে হামলা করছে’ বলেও অভিযোগ করেন বাবুল।

তবে ‘বিএনপির অপচেষ্টা সফল হবে না’ বলেও মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীর প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট।

সকাল থেকে নগরীর বিভিন্ন ভোটকেন্দ্র ঘুরে বিএনপির এজেন্টদের দেখা যায়নি। দলটির প্রার্থীরা অভিযোগ করেছেন, তাদের এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে।

ওই অভিযোগ অস্বীকার করে আওয়ামী লীগ নেতা বাবুল বলেন, কোনো কেন্দ্রে বিএনপির কাউকে হয়রানি করা হয়নি।

গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া যাতে ব্যাহত না হয়, সেজন্য আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের ‘ধৈর্য’ ধরার আহ্বান জানান তিনি।

বাবুল ছাড়াও নগর আওয়ামী লীগের নেতারা সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

সকাল ৮টায় চট্টগ্রামের ৭৩৫টি কেন্দ্রে ভোট শুরুর পর বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে বিক্ষিপ্ত সংঘাতের খবর আসতে থাকে।

নগরীর লালখান বাজার ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থীর অনুসারীদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষে অন্তত ২১ জন আহত হন। আর পাহাড়তলীতে দুই কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘাতের মধ্যে গুলিতে যুবকের মৃত্যু হয়।

ব্রিক ফিল্ড রোডে পাথরঘাটা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের বাইরে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার সময় একটি বুথে ইভিএম মেশিন ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী ইসমাইল বালিকে আটক করে পুলিশ।

Print Friendly and PDF