চট্টগ্রাম, শনিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২১ , ৯ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

চীনে বেল্ট এন্ড রোড ফ্রেন্ডশিপ অ্যাওয়ার্ড অর্জন পেলেন চট্টগ্রামের ছেলে মিসবাউল ফেরদৌস

প্রকাশ: ২০ ডিসেম্বর, ২০২০ ২:৪৩ : অপরাহ্ণ

প্রথম কোনো বাংলাদেশি হিসেবে ‘বেল্ট এন্ড রোড ফ্রেন্ডশিপ অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন বাংলাদেশি চিকিৎসক চট্টগ্রামের ছেলে মিসবাউল ফেরদৌস। করোনা প্রাদুর্ভাবের সময়ে চীনের পাশে থেকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়ায় সম্মানসূচক এ পুরষ্কার প্রদান করা হয় তাকে।

গত শুক্রবার সন্ধ্যায় জাতীয় সম্মেলন কেন্দ্র বেইজিং-এ ‘চায়না কার্ডিওভাস্কুলার হেলথ ২০২০’ শীর্ষক সম্বেলনে তার হাতে তুলে দেয়া হয় এ পুরষ্কার।

এ বছরের শুরুর দিকে করোনা মহামারী চীনে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ায়, পুরো চীন জুড়ে মেডিকেল সরঞ্জামাদি সংকট দেখা দেয়। এসময় সৌদি আরবে ‘আইএমসি লাইভ-৮’ সম্মেলনে ছিলেন বেইজিংয়ের ফুওয়াই হাসপাতালে কর্মরত বাংলাদেশি চিকিৎসক ডাঃ মিসবাউল ফেরদৌস।

ডাঃ মিসবাউল ওইসময় নিজস্ব অর্থায়নে সৌদি আরবের প্রায় ১৪ টি মেডিকেল স্টোর থেকে মাস্ক সংগ্রহ করে বেইজিং এ ফিরে আসেন। এগুলো তিনি চীনের বেইজিং, শ্যানডং, ছংছিং, কুনমিং, নিংশিয়া, সিচুয়ান ও আনহুই প্রদেশে বিতরণ করেছিলেন। এরপরে তিনি পর্যায়ক্রমে ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড ও বাংলাদেশ থেকে আরো ৩২ হাজার মাস্ক সরবারহ করে চীনের উহান, সাংহাই, শেনচেন ও ছংছিং প্রদেশে বিতরণ করেন।

এছাড়াও তিনি বাংলাদেশে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় হাসপাতালগুলোর জরুরি পরিস্থিতিতে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন। চীনের প্রথম সারির তিনটি সংগঠন ও কয়েকজন চীনা ডাক্তারের সহযোগিতায় দেশের সংকটকালীন মুহূর্তে ১০০ টি সুরক্ষা স্যুট, ১০০টি চশমা, ৪৫০টি ফেস-শিল্ড, চার হাজার সার্জিক্যাল মাস্ক ও ৬০০ এন-৯৪ মাস্ক চীন থেকে পাঠিয়েছিলেন ডাঃ মিসবাউল।

আত্মমানবতার সেবায় বিরল এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন করেছেন বাংলাদেশি এই চিকিৎসক। ডাঃ মিসবাউল ফেরদৌসের জন্ম বাংলাদেশের চট্টগ্রামে। তিনি চীনের শ্যানডং বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন।

ডাঃ মিসবাউল এশিয়ান সোসাইটি অব কার্ডিওলজি (ASC) এর সহ-সভাপতি। এছাড়াও তিনি এবছর এশিয়া প্যাসিফিক প্রাইমারি হেল্থ অ্যাসোসিয়েশন (APPHA) এর ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে আগামী ৬ বছরের জন্য নিযুক্ত হয়েছেন।

Print Friendly and PDF