চট্টগ্রাম, মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০ , ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সাতকানিয়ায় বৃদ্ধ বাবাকে রড দিয়ে পিটিয়ে রক্তাক্ত করল বখাটে ছেলে

প্রকাশ: ১৭ অক্টোবর, ২০২০ ১:০১ : পূর্বাহ্ণ

মোঃ নাজিম উদ্দিন, দক্ষিণ চট্টগ্রাম প্রতিনিধিঃ

দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় মোঃ নুরুল হক (৭০) নামের এক বৃদ্ধ বাবাকে লোহার রড দিয়ে পিটিয়েছে নিজের বখাটে ছেলে। এতে গুরুতর আহত হয়েছে বৃদ্ধ লোকটি। পিটানোর পর নিজের বাবাকে ঘরে বন্দি করে রাখে বখাটে ছেলে মোঃ ফরিদ।

২০ ঘণ্টা বন্দি অবস্থা থেকে উদ্ধার হয়ে শুক্রবার দুপুরে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে যান ওই বৃদ্ধ বাবা। হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নেওয়ার পর থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন।

এ ঘটনাটি ঘটে সাতকানিয়া উপজেলার কেঁওচিয়া ইউনিয়নের তেমুহনী এলাকায়।স্থানীয়রা জানান, কেঁওচিয়া ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের তেমুহনীর পেইরগার বাড়ির মৃত গোলাম ছোবাহানের পুত্র মোঃ নুরুল হককে তার বখাটে পুত্র মোঃ ফরিদ গত বৃহস্পতিবার বিকালে রড দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাতের পর ঘরে বন্দি করে রাখে। রক্তাক্ত বাবাকে চিকিৎসা করানোতো দূরের কথা, বন্দি অবস্থায় এক গ্লাস পানি পর্যন্ত খেতে দেয়নি।

রডের আঘাতের ব্যাথায় কাতরানো বাবার আকুতি ছেলের মন গলাতে পারেনি। আঘাতের পর বিনা চিকিৎসায় অনাহারে থাকতে হয়েছে দীর্ঘ ২০ ঘন্টা। পরে ছেলের অনুপস্থিতিতে লোকজনের সহায়তায় বাড়ি থেকে উদ্ধার হওয়ার পর চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে যান তিনি।
আহত বাবা মোঃ নুরুল হক জানান, ছেলে ফরিদ কখনো তাকে ভরন পোষন দেয়নি। বরং তার চাচী খালেদা বেগমের প্ররোচনায় দীর্ঘদিন যাবৎ আমার উপর নির্যাতন চালিয়ে আসছে। জুয়া খেলে ও নেশা করে ঘরে ফিরে বহুবার আমাকে মারধর করেছে।

গত কিছুদিন যাবৎ আমার বসত ভিটে বিক্রি করে তাকে টাকার দেয়ার জন্য বলে। আমি বাপ-দাদার রেখে যাওয়া ভিটে বিক্রি করতে পারবো না বলে জানিয়ে দিলে ছেলে ফরিদ আমাকে মারধর করে ও নানা রকম হুমকি দেয়। ঘটনার দিন ছেলে ফরিদ পুনরায় আমাকে গালি-গালাজ করে এবং জায়গা বিক্রি করে টাকা দিতে বলে।

তাতে প্রতিবাদ করলে ছেলে আমাকে কিল, ঘুষি ও লাথি দিতে শুরু করে। পরে রড দিয়ে আমার মাথায় আঘাত করার সময় চোখের পাশে আঘাত পাই। মারধরের এক পর্যায়ে আমি মাটিতে লুঠিয়ে পড়লে ছেলে আমাকে পুনরায় লাথি দেয় এবং মাটিতে টানা হেঁচড়া করতে থাকে।

পরবর্তীতে রক্তাক্ত অবস্থায় আমাকে ঘরে বন্দি করে রাখে। এসময় কেউ যেন আমাকে ঘরের দরজা খুলে না দেয় সেজন্য সবাইকে শাসিয়ে দেয়। মারধরের পর রক্তাক্ত অবস্থায় আমি একটু পানি খেতে চাইলে ছেলে আমাকে পানি পর্যন্ত খেতে দেয়নি।

গতকাল ফরিদ ঘর থেকে বের হয়ে গেলে সবাইকে অনুরোধ করে আমি পালিয়ে এসে সাতকানিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যায়।

সাতকানিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আনোয়ার হোসেন জানান, এ ঘটনায় আহত বাবা মোঃ নুরুল হক বাদি হয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে। অভিযোগ পাওয়ার সাথে সাথে পুলিশ ঘটনায় জড়িত বখাটে ছেলেকে গ্রেপ্তারের জন্য কাজ শুরু করে দিয়েছে।

Print Friendly and PDF

———