চট্টগ্রাম, বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০ , ৬ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আটকের পর নুরকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ

প্রকাশ: ২১ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১১:১২ : অপরাহ্ণ

মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পেয়েছেন পুলিশের হাতে আটক ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর। আটকের ২ ঘণ্টা পর ভিপি নূর ও সোহরাব হোসেনকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। শারিরীক অবস্থা খারাপ থাকায় তাদেরকে ডিবি পুলিশের প্রহরায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

এর আগে সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর করা ধর্ষণ মামলার প্রতিবাদ মিছিল থেকে তাকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ। রমনা জোনের উপ-কমিশনার সাজ্জাদুর রহমান জানান, আইনশৃঙ্খলায় বিঘ্ন ঘটানোর অভিযোগে আটক করা হয় নুরকে।

তিনি জানান, মিছিলটি শাহবাগ থেকে মৎস্য ভবনের দিকে যাওয়ার সময় বাধা দেয় পুলিশ। এ সময় বিক্ষোভকারীরা পুলিশের ওপর হামলা চালানোর চেষ্টা চালায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিপেটা শুরু করে পুলিশ। এ সময় ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরসহ ৭ জনকে আটক করা হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরসহ কোটা সংস্কার আন্দোলনের ৬ নেতার বিরুদ্ধে রোববার ধর্ষণ মামলা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রী। এতে প্রধান আসামি করা হয়েছে হাসান আল মামুনকে। ধর্ষণে সহযোগী হিসেবে আসামি করা হয়েছে ভিপি নুরসহ বাকি ৫ জনকে।

মামলার এজহারে উল্লেখ করা হয়, চলতি বছরের ৩ জানুয়ারি দুপুর ১টার দিকে ওই ছাত্রীকে হাসান আল মামুন লালবাগের নবাবগঞ্জ বড় মসজিদ রোডে তার বাসায় যেতে বলে। ওই ছাত্রীর অভিযোগ, ‘বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে’ সেখানে তাকে ধর্ষণ করা হয়। এরপর মামুনকে বিয়ের কথা বললে তিনি টালবাহানা শুরু করেন বলে ওই ছাত্রীর অভিযোগ।

তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে ২০ জুন নুরের কাছে অভিযোগ করেন ওই ছাত্রী। নুর তখন মীমাংসার আশ্বাস দিলেও পরে অবস্থান পাল্টে তাকে ‘বাড়াবাড়ি করতে’ নিষেধ করেন।

এজাহারে বলা হয়েছে, নুর বলেন, আমি যদি বাড়াবাড়ি করি, তাহলে তাদের ভক্তদের দিয়ে আমার নামে উল্টাপাল্টা পোস্ট করাবে এবং আমাকে পতিতা বলে প্রচার করবে।

কোটা সংস্কারের আন্দোলনের মধ্য দিয়ে গড়ে ওঠা ছাত্র অধিকার পরিষদ গত বছর অনুষ্ঠিত ডাকসু নির্বাচনে অংশ নিলে তাদের প্যানেল থেকে ভিপি নির্বাচিত হন নুর।

Print Friendly and PDF

———