চট্টগ্রাম, বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০ , ৬ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

কার্যক্রম চলবে ৩ সিনিয়র শিক্ষকের সমন্বয়ে

হাটহাজারী মাদ্রাসার নতুন মহাপরিচালক নির্বাচন সম্ভব হয়নি: শুরা কমিটি

প্রকাশ: ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ৯:১৩ : অপরাহ্ণ

আল্লামা শাহ আহমদ শফীর ইন্তেকালের পর হাটহাজারী মাদ্রাসার নতুন মহাপরিচালক নির্বাচন সম্ভব হয়নি। আপাতত মাদ্রাসায় একক কোনো মহাপরিচালক নিযুক্ত করা হবে না। তিনজনের একটি পরিচালনা কমিটি করা হয়েছে।

শনিবার আল্লামা শফীর জানাজার পর মাদ্রাসার শুরা কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এতে মাদ্রাসা পরিচালনার জন্য তিনজনকে নির্বাচন করা হয়েছে।

এ তিনজন হলেন, হাটহাজারী মাদরাসার প্রধান মুফতি মুফতী আবদুস সালাম, বর্তমান সহকারী পরিচালক, মাওলানা শেখ আহমদ ও মাওলানা ইয়াহইয়া।

এছাড়া মাওলানা জুনায়েদ বাবুনগরীকে শিক্ষা পরিচালক ও শায়খুল হাদিস হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, তিন সদস্য বিশিষ্ট এ কমিটি এখন থেকে হাটহাজারী মাদ্রাসার সব কাজের সুরাহা করবেন। তাদের সবার সমান অধিকার থাকবে। তাদের মধ্য থেকে কেউ একজন এককভাবে কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন না।

সম্মেলন ডেকে হেফাজতের আমির নির্বাচন করা হবে: বাবুনগরী

হেফাজতে ইসলামের আমির শাহ আহমদ শফীর মৃত্যুতে শূন্য হওয়া পদটি দ্রুত সময়ের মধ্যে পূরণ করা হবে বলে জানিয়েছেন সংগঠনটির মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরী।

শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বিকালে হাটহাজারী মসজিদের মাইকে জানাজার পূর্বে তিনি এ ঘোষণা দেন।

জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, আল্লামা শফী হুজুর আমাদের মুরুব্বি। আমরা উনার জন্য দোয়া করছি। আর আপনারা জানেন, হেফাজতে ইসলামের মধ্যে কোনো বিরোধ নেই। আল্লামা শফী হুজুরের মৃত্যুতে হেফাজতে ইসলামের আমির পদটি শূন্য হয়ে যায়। আমরা হুজুরের (আল্লামা শফী) জানাজা-দাফন শেষ করে দ্রুত সময়ের মধ্যে হেফাজতে ইসলামের সম্মেলন ডাকবো। সম্মেলনে আমরা সর্বসম্মতিক্রমে হেফাজতে ইসলামের আমির নির্বাচন করবো।

এসময় শুরা কমিটির সদস্য মাওলানা সালাউদ্দিন নানুপুরী বলেন, চট্টগ্রামের হাটহাজারীর আল জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম (বড় মাদরাসা) মাদরাসার মহাপরিচালক আহমদ শফীর পদত্যাগ ও মৃত্যুর পর এর দায়িত্ব নিয়েছে শুরা কমিটি।

তিনি বলেন, আমি মাওলানা সালাউদ্দিন নানুপুরী। আল্লামা শফী হুজুর আমাদের মুরুব্বি ছিলেন। আমরা সকলে আল্লামা শফী হুজুরের জন্য দোয়া করবো। মাদরাসা নিয়ে চলমান সংকট নিরসনে শুরা কমিটি মাদরাসার দায়িত্ব পালন করবে। আমি আল্লামা শফী হুজুরের জানাজা-দাফনের পরে দ্রুত সময়ের মধ্যে মাদরাসার পরিচালক নিয়োগ করবো। পরিচালক নিয়োগের পূর্বসময় পর্যন্ত শুরা কমিটি মাদরাসা পরিচালনা করবে।

প্রসঙ্গত, গত ২০১০ সালের ১৯ জানুয়ারি দারুল উলুম হাটহাজারী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ওলামা সম্মেলনে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ গঠন করা হয়। আহমদ শফী এর প্রতিষ্ঠাতা আমির মনোনীত হন। এরপর ২০১১ সালে তার নেতৃত্বেই ‘নারী উন্নয়ন নীতিমালার বিরুদ্ধে’ চট্টগ্রামে কর্মসূচি পালন করে সংগঠনটি। তখন ঢাকায় শায়খুল হাদিস আল্লামা আজিজুল হক, মুফতি ফজলুল হক আমিনীর নেতৃত্বে ঢাকায় আন্দোলন হয়। ২০১২ সালে এই দুই নেতা মারা যাওয়ার মধ্য দিয়ে ঢাকার আলেমদের মধ্যে এক ধরনের নেতৃত্বহীনতা সৃষ্টি হয়।

নানা চরাই-উৎরাই পাড়ি দিয়ে সংগঠনটি গুছিয়ে আনার পর শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় রাজধানীর আজগর আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন আল্লামা আহমদ শফী। তিনি দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্যজনিত দুর্বলতার পাশাপাশি ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। শনিবার বাদ জোহর হাটহাজারী মাদরাসা প্রাঙ্গণে তাকে দাফন করা হয়েছে।

Print Friendly and PDF

———