চট্টগ্রাম, মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ , ৭ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

রামগড়ে চাঁদার দাবীতে অপহৃত দুই বিক্রয় প্রতিনিধিকে ৮ দিনেও উদ্ধার করা যায়নি

প্রকাশ: ৩০ আগস্ট, ২০২০ ৩:২০ : অপরাহ্ণ

রামগড় (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি

খাগড়াছড়ির রামগড়ে চাঁদার দাবীতে পার্বত্য চট্টগ্রামের আঞ্চলিক সংগঠন ইউপিডিএফ’র প্রসীত গ্রুপের সন্ত্রাসীদের হাতে অপহৃত ফেনীর জুয়েল ট্রেড্রার্সের মার্কেটিং ম্যানেজার মঞ্জুরুল আলম (৩৫) সে চট্টগ্রামের পাহাড়তলীর ওবায়দুল হকের ছেলে ও ফিটিংস মিস্তি মো. রাজু মিয়া (২৮) নোয়াখালী জেলার সুধারাম থানার বাসিন্ধা। অপহৃতদের উদ্ধারে যৌথবাহিনী দফায় দফায় অভিযান চালিয়েও দীর্ঘ ৮ দিনেও উদ্ধার করতে পারেনি।

জানা গেছে, গত রবিবার (২৩ আগস্ট) ফেনী থেকে খাগড়াছড়ি গামী জুয়েল ট্রেডার্সের প্লাস্টিক পণ্যবাহী পিকআপ গাড়িটি দুপুর ১টার সময় রামগড়ের যৌথ খামার এলাকায় পৌঁছলে সন্ত্রাসীরা গাড়িটিকে থামিয়ে চাঁদা পরিশোধের টোকেন চায়। কিন্তু চালক টোকেন দেখাতে না পারায় সন্ত্রাসীরা অস্ত্রের মুখে গাড়িটি প্রধান সড়ক থেকে দাঁতারাম পাড়া রাস্তা দিয়ে কিছুটা ভিতরে নিয়ে যায়। পরে গাড়িতে থাকা কোম্পানির মার্কেটিং ম্যানেজার মঞ্জুরুল আলম (৩৫) ও ফিটিংস মিস্তি মো. রাজু মিয়া (২৮) কে ২টি মোটরসাইকেলে তুলে বৌদ্ধপাড়ার দিকে নিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। সন্ত্রাসীরা গাড়ির চাবি নিয়ে গেলেও চালককে ছেড়ে দেয়।

চালক মিজানুর রহমান জানান, খাগড়াছড়ি সদরে একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের অর্ডারের ৩০টি প্লাস্টিক দরজা ডেলিভারি দিতে তারা খাগড়াছড়ি যাচ্ছিলেন। ইউপিডিএফের প্রসীত গ্রুপের ঐ সন্ত্রাসীরা তাকে জানায়, জুয়েল ট্রেডার্সের মালিকের কাছে চাঁদার ২০ হাজার টাকা পাওনা রয়েছে। এসময় সন্ত্রাসীরা জুয়েল ট্রেডার্সের মালিককে কল করে চাঁদার বকেয়া টাকা পাঠাতে বলে। এ টাকা ছাড়া কাউকে ছেড়ে দেয়া হবে না বলেও তারা সাফ জানিয়ে দেয়। এ ঘটনায় চালক মিজান বাদি হয়ে ২৪ আগস্ট রামগড় থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

ফেনীর মাষ্টারপাড়া ধর্মপুরের বাসিন্দা জুয়েল ট্রেডার্সের মালিক মেহেদী হাসান জুয়েল জানান, অপহরণের খবর জানতে পেরে রামগড় থানার পুলিশকে জানালে পুলিশের এক কর্মকর্তা ঐ সন্ত্রাসীদের লিডারকে মোবাইল ফোনে গাড়ি ও লোকজনদের ছেড়ে দিতে বলায় তারা আরও ক্ষুব্দ হয়ে তাদের অপহরণ করে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় তবে তিনি জানান, পূর্বে সন্ত্রাসী ৩০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করলে ব্যবসায়ীক স্বার্থে ২৩ হাজার টাকা পরিশোধ করি পরবর্তীতে আর টাকা না চাওয়ায় যোগাযোগ হয়নি। দীর্ঘ ৮ দিনেও কোন সন্ধান না পাওয়ায় তাদের পরিবার-পরিজনসহ আমরা সকলেই চরম উদ্বেগ উৎকণ্ঠার মধ্যে রয়েছি।

রামগড় থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শামসুজ্জামান বলেন, অপহৃতদের উদ্ধারে বিজিবি পুলিশ যৌথভাবে সম্ভাব্য এলাকায় উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

Print Friendly and PDF

———