চট্টগ্রাম, বুধবার, ৫ আগস্ট ২০২০ , ২১শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

গণমাধ্যমে অপ্রচার চালিয়ে শ্বশুর বাড়ির লোকজন আমাকে নির্যাতন করছে

প্রকাশ: ২৯ জুলাই, ২০২০ ৯:১৪ : অপরাহ্ণ

শোকের বিতর গণমাধ্যমে অপপ্রচার চালিয়ে আমার শ্বশুর বাড়ির লোক আমাকে মানসিক সামাজিক নির্যাতন করছেন। বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের মধ্যে আমার বিয়ের দিন তারিখ ছাড়া বাকি কথা গুলো মিথ্যা ও বানোয়াট।

আজ বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে নেভি এন‍্যংকরেজ স্কুল এন্ড কলেজের প্রভাষক আইরিন হোসাইন তানজিনা এই অভিযোগ করেন।

তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, আমাদের সংসার জীবন অনেক সুখের ছিল, কোন ধরনের সমস্যা ছিল না। চাকরিতে যোগ দিতে না পারা, বদলির আশঙ্কা, শেয়ারবাজারে সাত লক্ষ টাকা খোয়ানো, ব্র্যাক ব্যাংকের লোন, সহকর্মীর কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা ধার নেওয়া, টাকার জন্য ফোন করে বিরক্ত করা এইসব বিষয় নিয়ে মানসিক চাপে ছিলেন আমার স্বামী। সব চাপ সইতে না পেরে আমার স্বামী আত্মহত্যা করেছেন।

তিনি আরো বলেন, আমার স্বামী যদি আত্মহত্যা করে ঐদিন সকালে একসাথে নাস্তা করি সকাল সাড়ে এগারোটায় একসাথে ভাত খেয়ে বোনাস তুলতে বহদ্দারহাট এর উদ্দেশ্যে রওনা দিই। বের হওয়ার সময় আমার স্বামী নিজে ঘরের দরজার হুক লাগান।

আমি দুপুর দুইটার দিকে ঘরে ফিরে আসি। ফিরে এসে কলিং বেল দরজা ধাক্কানো, মোবাইলে ফোন করার আমি যখন দরজা খুলছে না তখন বাড়িওয়ালার সহযোগিতা নিয়ে জানালা দিয়ে বাস এর সাহায্যে হুক খুলে দেখতে পাই আমার স্বামী নিচে পড়ে আছে।

উপস্থিত সবার সামনে দ্রুত থেকে তুলে বসালে দেখা যায়, কপাল ফাটা প্রচুর রক্ত। চোখ পালস হার্ট বিট দেখতে গিয়ে দেখা যায় রশি পেঁচানো। দ্রুত প্যাচাল রশি কেটে ফেলা হয়। গলায় রশি দেখে বাড়িওয়ালার ছেলে পুলিশকে ফোন করে, আমার স্বামীকে বাঁচাতে আমার মা পুলিশের সহযোগিতা চাই। পুলিশ হাসপাতাল নেওয়ার সুযোগ করে দে।

হাসপাতাল এ কি প্রথম ইসিজি করে তখন তিনি বেঁচে ছিলেন, দ্বিতীয়বার ইসিজি করার পর জানান তিনি মারা গেছেন। পুলিশ পোষ্টমটেম করবেন কিনা জানতে চাইলে, আমরা সরাসরি জানিয়ে দিই পোস্টমর্টেম ছাড়া লাশ গ্রহন করা হবে না। লাশ দাফন করতে গিয়ে বিভিন্নভাবে নির্যাতনের শিকার হয়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মরহুম রহিম উদ্দিনের মা ফাতেমা বেগম, শাশুড়ি নুরনাহার, শশুর শাহাদাত হোসাইন ও বাড়িওয়ালা মনিরুল বাহার।

Print Friendly and PDF

———